২২ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তারকাদের মেলা ‘হাউজফুল ফোর’

  • অনন্য রেজা করিম

নির্মল বিনোদনের জন্য দর্শক কমেডি সিনেমা দেখতে চায়। দর্শক চাহিদার কথা বিবেচনা করে হলিউড বলিউড টালিউড ঢালিউডÑ সবখানেই কমেডি সিনেমা তৈরি করেন নির্মাতারা। অতীতেও যেমন কমেডি সিনেমার বিশেষ কদর ছিল। আজও তেমনি আছে। বলিউডে রোমান্টিক, এ্যাকশন, সামাজিক সেন্টিমেন্টনির্ভর, ঐতিহাসিক বিচিত্র ধরনের সিনেমার পাশাপাশি প্রতিবছর অনেক কমেডি সিনেমা মুক্তি পায়। এ সপ্তাহে মুক্তি পাচ্ছে জমজমাট আয়োজনের তারকাবহুল বিগ বাজেটে তৈরি সিনেমা ‘হাউজফুল ফোর’। বলা হচ্ছে এটি বলিউডের সবচেয়ে বড় বাজেট নির্মিত কমেডি সিনেমা। এ ছবিটি নির্মাণে বাজেট ছিল ৭৫ কোটি রুপি। প্রখ্যাত প্রযোজক সাজিদ নাদিয়া দওয়ালা তার প্রযোজনা সংস্থা থেকে হাউজফুল ফ্রাঞ্চাইজির তিনটি সিনেমা বানিয়েছেন। প্রতিটিই বক্স অফিসে দুর্দান্ত ব্যবসায়িক সাফল্যের চমক দেখিয়েছে। হাউজফুল ছবিটি মুক্তি পায় ২০১০ সালে। এরপর ‘হাউজফুল টু ‘হাউজফুল থ্রি’ ছবিগুলো যথাক্রমে ২০১২ এবং ২০১৬ সালে মুক্তি পেয়েছে। প্রথম দুটি সিনেমার পরিচালক ছিলেন সাজিদ খান। ‘হাউজফুল ফোর’ ছবিটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছিলেন সাজিদ খান ও ফরহাদ সামঝি। ‘হাউজফুল ফোর’ ছবিটি মাজিদ খানের পরিচালনা করার কথা ছিল। কিন্তু গত বছর কয়েক নারী তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনার পর হাউজফুল ছবির প্রযোজনা সংস্থা সাজিদ খানকে পরিচালনার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেন। তার জায়গায় এ ছবির একক পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পান হাউজফুল থ্রির দুই পরিচালকের একজন ফরহাদ সামঝি।

কয়েক জোড়া নায়ক-নায়িকা নিয়ে হাউজফুল ফ্রাঞ্চাইজির প্রতিটি সিনেমা তৈরি হয়েছে আগে। আগের তিন ছবিতেই অক্ষয় কুমার, রীতেশ দেশমুখ ছিলেন। এবারের চতুর্থ ছবিটিতেও তারা আছেন। তবে এবার তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন ববি দেওল। তিন নায়ক অক্ষয় কুমার, রীতেশ দেশমুখ ও ববি দেওলের বিপরীতে আছেন তিন সুন্দরী গ্ল্যামারাস তন্বী নায়িকা কৃতি শ্যানন, কৃতি খারবান্দা, পূজা হেগড়ে। এ ছাড়াও আছেন বোমান ইরানী, চাঙ্কি পান্ডে, জনি লিডার, নাওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী প্রমুখ। কয়েক শ’ বছর আগের তিন জোড়া প্রেমিক প্রেমিকার পুনর্জন্ম লাভ এবং এই সময়ের পটভূমিকায় তাদের নতুন প্রেক্ষাপটে ফিরে আসার পর নানা বিপত্তি সৃষ্টির গল্প তুলে ধরা হয়েছে হাউজফুল ফোর ছবিতে। হাউজফুল ফ্রাঞ্চাইজির প্রতিটি সিনেমাতে হাস্য কৌতুক মজাদার নানা ঘটনার অবতারণা থাকলেও একটি ছবির সঙ্গে আরেকটি ছবির কাহিনীর যোগসূত্র কিংবা ধারাবাহিকতা অথবা সম্পর্ক থাকে না। সম্পূর্ণ নতুন চরিত্র নতুন গল্প নিয়ে আবর্তিত হয় প্রতিটি ‘হাউজফুল’ সিনেমা।

আগের সিনেমাগুলোতে দীপিকা পাড়ুকোন, জিয়া খান, আসিন, মালাইকা অরোরা, লারা দত্ত, জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ, অর্জুন রামপাল, রণধীর কাপুর, জন আব্রাহাম, শ্রেয়াস তালপাড়ে, জেরিন খান, ঋষি কাপুর, মিঠুন চক্রবর্তী, অভিষেক বচ্চন, জ্যাকি স্রেফদের মতো বলিউডের নামী-দামী জনপ্রিয় অনেক তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রীকে দেখা গেছে। এবারও ‘হাউজফুল ফোর’ ছবিতে বলিউডের অনেক জনপ্রিয় নায়ক-নায়িকা ও অভিনয় শিল্পীকে দেখা যাবে।

আজকাল অক্ষয় কুমার থাকলে সেই সিনেমাটি সুপারহিট হচ্ছে। গত কয়েক বছর ধরে তিনি বলিউডে সবচেয়ে সফল তারকা অভিনেতা হিসেবে বিবেচিত হচ্ছেন। যদিও ভিন্ন ধরনের বিষয়বস্তুর সিরিয়াস সামাজিক বক্তব্য প্রধান ছবিগুলোতে অক্ষয় কুমার প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করে আসছেন। তবে এবারে অনেক দিন পর একটি কমেডি ছবিতে আবার দর্শকদের স্রেফ বিনোদন দেয়ার উদ্দেশে রুপালি পর্দায় হাজির হচ্ছেন তিনি। অক্ষয়ের নতুন মিশন ‘হাউজফুল ফোর’ ও বড় ধরনের সাফল্যের চমক বলে দেখাবে আশা করা যায়।