১৮ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নীলফামারীতে ৫দিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবের উদ্ধোধন

নীলফামারীতে ৫দিন ব্যাপী  আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবের উদ্ধোধন

স্টাফ রির্পোটার, নীলফামারী ॥ বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে উত্তরাঞ্চলের নীলফামারী শহরে ৫ দিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবের/২০১৯ উদ্ধোধন করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় এই উৎসবের উদ্ধোধন করা হয় স্থানীয় শিল্পকলা একাডেমিতে। এখানে মঞ্চ নাটকের পাশাপাশি থাকছে নাট্যকলার পূর্বাপর বিষয়ক সেমিনার। নাট্যোৎসবে উৎসবের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহা পরিচালক ও বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতি লিয়াকত আলী লাকী। জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে উৎসবের আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্ধোধন করেন নীলফামারী পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ।

রাজশাহী বিশ্ব বিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নবনীতার সঞ্চালনায় জেলা পষিদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম আতিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মমতাজুল হক। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক আল জাবির, নাট্যকার ও নির্দেশক সায়িক সিদ্দিকী, সনাক সভাপতি এস,এম শফিকুল ইসলাম ডাবলু, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আহসান রহীম মঞ্জিল, পৌর আঃলীগের সভাপতি মুশফিকুর রহমান রিন্টু। উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উক্ত উৎসবের আহবায়ক নীলফামারী জলসিঁড়ি নাট্য সংস্থার সাধারন সম্পাদক ওবায়দুর রহমান। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন নাট্য উৎসবের যুগ্ন আহবায়ক শাহজাহান, জলসিঁড়ি নাট্য সংস্থার সদস্য সচিব মহিউদ্দিন মহি, সদস্য দৃস্টি প্রামানিক, বিপ্লব কুমার রায় জার্জিস আলম প্রমুখ।এর আগে শহরে বের করা হয় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। শিল্পকলা চত্বরে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে উৎসবের আনন্দে নৃত্য পরিবেশনা করা হয়।

আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবের আয়োজক সূত্রে জানা যায়, এই উৎসবে ভারতের দুইটি ও বাংলাদেশের তিনটি নাট্যদল অংশ নিচ্ছে। ভারত আমাদের বন্ধুপ্রতিম দেশ। স্বাধীনতাযুদ্ধে ভারত বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ উপহার দিতে সহযোগীতা করেছে। দুই বাংলা সীমান্তের কাটাতারের বেড়ায় আবদ্ধ থাকলেও মনের ভালবাসা ও আত্মার টান রয়েই গেছে। প্রতিবেশী এই দেশের সঙ্গে সাংস্কৃতিক মেলবন্ধন সৃষ্টির লক্ষ্যে এই নাট্য উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।আজ শুক্রবার পহেলা নবেম্বর থেকে ৫ নবেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চে শুরু হবে নাটক। চারশত আসনের শিল্পকলা একাডেমিতে একই নাটকের দুটি করে শো মঞ্চায়ন করা হবে। কারন ব্যাপক সাড়া পড়েছে নাট্য প্রেমি দর্শকদের। ভিড় সামলাতেই দুটি করে শো প্রর্দশন আয়োজন করা হয়।

উদ্ধোধনের দিন শুক্রবার সাড়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বাংলাদেশের সায়িক সিদ্দিকীর রচনা ও নির্দেশনায় ভারতের চাকদাহ নাট্যজন মঞ্চায়িত করবে “ভানু সুন্দরীর পালা”। দ্বিতীয় দিন শনিবার মলয় ভৌমিকের রচনা ও নির্দেশনায় রাজশাহীর অনুশীলন নাট্যদল মঞ্চায়িত করবে “বুদে রামের কূপে পড়া”। তৃতীয় দিন রবিবার হর ভট্রাচার্য্যরে রচনায় গৌতম মুখার্জির নির্দেশনায় ভারতের ছন্দম নাট্যগোষ্ঠী মঞ্চায়িত করবে “মেদেয়ারা”। চতুর্থদিন সোমবার সম্বিক সাহার রচনায় জারজিজ আলমের নির্দেশনায় নীলফামারীর জলসিঁড়ি নাট্য সংস্থা মঞ্চায়িত করবে “হবু রাজার একুল পালন”। সমাপনী দিন মঙ্গলবার রুবায়েৎ আহমেদের রচনায় সুদীপ্ত চক্রবর্তীর নির্দেশনায় ঢাকা পদাতিক নাট্য সংসদ মঞ্চায়িত করবে সৈয়দা শামসি আরা সায়েকার একক পরিবেশনায় নাটক “গহনযাত্রা”। সমাপনীর দিন নাটক শুরুর আগে নীলফামারীর কয়েকজন সাংস্কৃতিককর্মীকে সম্মাননা দেওয়া হবে।

এদিকে স্থানীয় জলসিঁড়ি নাট্য সংস্থার আয়োজনে এ উৎসবকে ঘিরে সাংস্কৃতিকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে। সেই সঙ্গে মঞ্চের সামনে বসে দেশ ও বিদেশের নাট্যসংস্থার পরিবেশিত শিল্পীদের অভিনয় দেখতে মুখিয়ে আছেন নাট্য প্রেমিক দর্শক। প্রথম নাট্য উৎসব ঘিরে বৈচির্ত্র্যময় প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন আয়োজক সংগঠনের সদস্যরা। উদযাপনকে কেন্দ্র করে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট সেজেছে পোস্টার, ব্যানার আর ফেস্টুনে। চলছে তুমুল প্রচারনার মাইকিং। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও উৎসবের আমেজ। যাঁদের বন্ধুতালিকায় সংস্কৃতি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা নাট্যানুরাগী আছেন,ফেসবুক এখন নাট্যোৎসবময়। সহশিল্পীদের সঙ্গে ছবি, পোস্টার ব্যানার পাশে রেখে সেলফি; চলছেই।