১৯ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আবারও শাকিব খান!

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। বিরতি ভেঙে আবারও ধানুকার প্রযোজনায় সিনেমা করবেন। এর আগে এসকে মুভিজের ‘শিকারি’, ‘নবাব’, ‘চালবাজ’ ও ‘ভাইজান এলো রে’ নামের ছবিতে অভিনয় করেছেন। বেশিরভাগ সিনেমা দুই বাংলায় দর্শকপ্রিয়তা পায়। মাঝে অনেকদিন এসকে মুভিজের সঙ্গে কোন নতুন কাজ করেননি এই সুপারস্টার। ভারতের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসকে মুভিজের কর্ণধার অশোক ধানুকা সম্প্রতি ‘বাংলাদেশ ভারত ফিল্ম এ্যাওয়ার্ড ’ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকায় এসেছিলেন। জানা গেছে, শাকিব খানের সঙ্গে নতুন কাজ নিয়ে বৈঠকও করেছেন তিনি। আবারও শাকিব খানকে নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করার পরিকল্পনা করছেন তিনি। তবে শাকিব খানের সঙ্গে এ বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এদিকে শাকিবের বিরুদ্ধে সিডিউল নিয়ে টালবাহানার অভিযোগ উঠেছে। ‘মাই ডার্লিং’ সিনেমার প্রযোজক মনিরুজ্জামান শাকিবের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন। ২০১৪ সালে ‘মাই ডার্লিং’ সিনেমার নির্মাণ কাজ শুরু“করেন। ১৫ লাখ টাকা পারিশ্রমিকে চুক্তি করে সাইনিংয়েই ১৫ লাখ টাকার চেক দেন শাকিব খানকে। কিছুদিন শূটিং করেই নানান টালবাহানা শুরু করেন বলে অভিযোগ করেন এই প্রযোজক। এ ব্যাপারে শাবিকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাকে মুঠোফোনে পাওয়া যায়নি। মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘মাই ডার্লিং’ সিনেমাটি ২০১৪ সালে মহরতের মাধ্যমে শূটিং শুরু“হয়েছিল। শাকিব-অপু জুটি ছাড়া অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন অমিত হাসান, প্রবীর মিত্র, রেহানা জলি ও কাবিলা। এদিকে শিডিউল জটিলতা নিয়ে অপু বিশ্বাস একাধিকবার বলে আসছেন অসমাপ্ত সিনেমার কাজ করতে তার কোন আপত্তি নেই। ‘মাই ডার্লিং’ সিনেমার শিডিউল যে কোন সময় নিতে পারে। সবশেষ গেল ঈদে এই নায়কের অভিনীত ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ মুক্তি পায়। দর্শক মহলে এই সিনেমা খুব একটা সুনাম কুড়াতে না পারলেও অপেক্ষায় আছে ‘শাহেনশাহ’, ‘একটু প্রেম দরকার’ এর মতো বড় বাজেটের সিনেমা।