১৬ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা

  • পৃথ্বীশ চক্রবর্তী

বর্তমান সময়ে যারা ভাল শিশুতোষ গল্প লিখছেন সঞ্জয় কর তাদের দলে। তার গল্প পড়লে পাঠক একটি শিক্ষণীয় মেসেজ পাবেনই। তার আরেকটি গুণ ‘হঠাৎ করেই শুরু আর হঠাৎ করেই শেষ’ গল্পের ওই বৈশিষ্ট্য তিনি অক্ষরে অক্ষরে পালন করে চলছেন। তার গল্পে এতই আকর্ষণ থাকে একটু পড়ে শেষ না করে রাখা যাবে না। পাঠককে তিনি সমস্ত গল্পটি পড়তে বাধ্য করেন।

‘লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা’ সঞ্জয় করের প্রথম শিশু-কিশোর উপযোগী গল্পগ্রন্থ। অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯ এ সপ্তবর্ণ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত এ বইটির নান্দনিক প্রচ্ছদ এঁকেছেন ধ্রুব এষ এবং অলঙ্করণ করেছেন বিশ্বজিৎ আচার্য্য রন্টু। ১১টি গল্পের সমন্বয়ে ৭৬ পৃষ্ঠার গ্রন্থটির মূল্য ধার্য করা হয়েছে মাত্র এক শ’ আশি টাকা।

গ্রন্থটির প্রথম গল্প ‘লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা’ গল্পটিতে লেখক গরিব ঘরের মেয়ে ছোট্ট শিশু সোনালির পাশাপাশি পতাকা বিক্রেতা ফেরিওয়ালা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার জীবনের খন্ডচিত্র ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। গল্পটিতে ভাষা আন্দেলন, বঙ্গবন্ধু, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংক্ষিপ্ত আকারে গল্পকার টাস করেছেন। গল্পটিতে লেখকের দেশপ্রেম দারুণভাবে প্রকাশ পেয়েছে।

‘মিষ্টি নিয়ে সৃষ্টি কান্ড’ গল্পে লেখক একজন ভন্ড সন্ন্যাসীর ভন্ডামি তুলে ধরার প্রয়াস পেয়েছেন। সাজু মিয়ার গোয়েন্দাগিরিতে মিষ্টিচোর ধরার কাহিনীসহ মিষ্টি জাতীয় খাবার যেমন- চকোলেট, চুইংগাম, ইত্যাদি খাওয়া যে ঠিক নয়, দাঁতের জন্য ক্ষতিকর বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে শিক্ষণীয় মেসেজ আছে এ গল্পে।

‘অনুতপ্ত মন’ গল্পে লেখক গল্পের দুষ্ট চরিত্র পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া ‘মন’ নামের কিশোরটির অপকর্ম তুলে ধরেছেন এবং শেষ পর্যন্ত মন তার বাবার মাথায় আঘাতের মাধ্যমে নিজেকে শোধরাবার সুযোগ পায় এবং নিজের ভুল বুঝতে পেরে অনুতপ্ত হয়। এটিও একটি শিক্ষণীয় কিশোর উপযোগী গল্প।

পরিবারের মানুষকে না জানিয়ে শিশু-কিশোরদের দূরে একা কোথাও যাওয়া যে ঠিক নয়, এমন একটি বার্তা আছে ‘ভুলের মাশুল’ গল্পে।

‘মনীষার শিক্ষা’ গল্পে লেখক শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ছাড়া কোন বিশেষ জিনিসের প্রতি আসক্ত না হওয়ার শিক্ষা দিয়েছেন মনীষার ছোট মামার মাধ্যমে। ‘আইপেড’ নেশায় মনীষার লেখাপড়া চুলোয় যেতে বসেছিল কিন্তু তার ছোট মামা আইপেডটি দীর্ঘদিন লুকিয়ে রাখায় ওটার প্রতি তার আসক্ততা ধীরে ধীরে কমে যায়, পড়াশোনায় মন বসে; পরিশেষে ভাল রেজাল্ট এলো।

‘উদয় পুরের উর্মিমালা’ গল্পে শৈশব থেকেই শিশু-কিশোরদের মধ্যে সাম্য, ভ্রাতৃত্ববোধ, সম্প্রীতি ও পরম বন্ধুতার বন্ধন গড়ে ওঠার মন্ত্রণা পাই।

কেউ কেউ কিশোর বয়স থেকেই রহস্যময় হয়ে ওঠে আর কেউ কেউ সেই রহস্য উদ্ঘাটনের প্রচেষ্টায় থাকে। ‘সোনার ময়না’ এমনই এক গল্প যেখানে সোনালি নামের কিশোরীটি আশ্চর্য রকম রহস্যময়ী হলেও গল্পের নায়িকা আরেক কিশোরী আরফা তার স্বীয় বুদ্ধিমত্তা দিয়ে সব রহস্য উদ্ঘাটন করে ফেলে।

‘আবেগে অনাসৃষ্টি’ গল্পটির শিরোনাম তেমন আকর্ষণীয় না হলেও এই গল্পটিতে কোথাও মারামারি শুরু হলে সেখানে দেখতে যাওয়া যে ঠিক নয়, প্রাণ যাওয়ার শঙ্কা থাকে এমন একটি শিক্ষণীয় বিষয় লেখক ফুটিয়ে তোলার প্রচেষ্টা করেছেন। গল্পটিতে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা সমর্থকদের মধ্যে মারামারি দেখতে গিয়ে রমেশের লাশ হয়ে ফেরার কাহিনী সত্যিই বেদনাদায়ক।

নিজ স্বার্থ হাসিল করার জন্য অনেক কিছুই করতে পারে কিছু মানুষ, এমন একটি ইঙ্গিত ‘কারসাজি’ গল্পে উপস্থাপন করেছেন গল্পকার।

এভাবে সঞ্জয় করের এগারোটি গল্পে সাজানো ‘লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা’ গল্প গ্রন্থটিতে নাটকীয়ভাবে তৈরি তার গল্পগুলো পড়লে পাঠক বেশ মজা পাবেন, ভাল লাগবে, আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে পারি।