১৫ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফারের পোশাককে না

 ফারের পোশাককে না

ধবধবে সাদা টুপি হোক কিংবা হাল্কা বাদামি ওভারকোট। ব্রিটেনের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের পোশাকে পশুর লোম বা ‘ফার’ এতদিন খুবই পরিচিত বিষয় ছিল। তবে বাকিংহাম প্যালেসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, আর কোন নূুতন পোশাকে ফার ব্যবহার করবেন না রানী। শীতের পোশাকে

প্রয়োজনে ব্যবহার করা হবে নকল ফার। পুরনো যেসব ফারের পোশাক রয়েছে, সেগুলো কখনও-কখনও পরবেন রানী। এই সিদ্ধান্তে খুশি বিভিন্ন পশুপ্রেমী সংগঠন। পেটা-ইউকে নামে এক সংগঠন জানিয়েছে, ব্রিটেনে যেসব ফারের পোশাক বিক্রি হয়, তার ৮৫ শতাংশ বিদেশ থেকে আমদানি করা। খুবই নৃশংসভাবে সেই পশুগুলোর মারা হয়। এই সিদ্ধান্তের জন্য রানীকে আমাদের অভিবাদন। হিউমেন সোসাইটি নামে অপর একটি সংস্থার ডিরেক্টও ক্লেয়ার বাসের কথায়, রানীর এই সিদ্ধান্তের পরে আশাকরি সবাই বুঝবেন যে, ফার মানেই ফ্যাশনদুরস্ত নয়। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফ্যাশন লেবেল ইতোমধ্যেই ফারের ব্যবহার বন্ধ করে দিয়েছে। সেইসব সংস্থার মধ্যে রয়েছে প্রাদা ও গুচি। মার্কিন সংস্থা মেসিজেও জানিয়েছে, ২০২০ সালের অর্থবর্ষের মধ্যে তাদের সব দোকানে ফারের জিনিস বিক্রি বন্ধ করে দেয়া হবে। সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করেছে, ফারের জিনিসের উৎপাদন ও বিক্রি বেআইনী এবং দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে।-ইন্ডিপেন্ডেন্ট

নির্বাচিত সংবাদ