১১ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজনীতিকে অবৈধ সম্পদ অর্জনের হাতিয়ার করা বন্ধ করতে হবে ॥ রাষ্ট্রপতি

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ দেশে সুষ্ঠু ও গতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ গড়ে তোলার দায়িত্ব নিতে রাজনীতিবিদদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘একটা শ্রেণী রাজনীতিকে ব্যবসা আর অবৈধ সম্পদ অর্জনে হাতিয়ারে পরিণত করেছে। রাজনীতিতে এই সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় রাজনীতি ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের প্রতি মানুষের আস্থা ও আগ্রহ কমে যাবে।’ খবর বাসসর।

রাষ্ট্রপ্রধান সোমবার সন্ধ্যায় স্পীকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী ৯২তম জন্ম দিবস উপলক্ষে স্পীকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভায় এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশে সুষ্ঠু ও গতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ গড়ে তোলার দায়িত্ব রাজনীতিকদেরই নিতে হবে। রাজনীতি যাতে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস নিয়ে জনগণের কল্যাণে পরিচালিত হতে পারে তা নিশ্চিত করতে হবে।

দেশের সকল রাজনৈতিক দল ও রাজনীতিক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও ভবিষ্যত নেতৃত্ব গড়ে তুলতে উদ্যোগী হবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। আবদুল হামিদ বলেন, তাহলেই সৎ. যোগ্য ও মেধাবী তরুণরা রাজনীতিতে আগ্রহী হবে এবং সাধারণ মানুষ রাজনীতিকদের সম্মানের চোখে দেখবে।

তিনি কতিপয় দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকের কর্মকা-ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘রাজনীতি কোন পেশা নয় যার বিনিময়ে গাড়ি-বাড়ি করা যায়, কিন্তু আজকাল দেখা যায় ছোটখাটো নেতা হলেই টাকা, গাড়ি আর বাড়ির অভাব হয় না। এতে সৎ ও যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে ওঠার পথ রুদ্ধ হবে। রাজনীতি তখন রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে না, যা কোনভাবেই কাম্য নয়। অভিজ্ঞ এই রাজনীতিক আরও বলেন, রাজনীতির মূল লক্ষ্য হচ্ছে মানুষের কল্যাণ। একজন রাজনীতিকদের জন্য নীতি ও আদর্শ মেনে চলা খুবই জরুরী। দেশ ও দল পরিচালনায় নেতৃত্বের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। রাষ্ট্রপতি বলেন, নেতৃত্ব সঠিক পথে পরিচালিত হলে দেশ ও জাতি সঠিক পথে এগিয়ে যায় এবং দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন স্পীকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মোঃ নজিবুর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমেদ এমপি। অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ইনাম আহমেদ চৌধুরী, জেবা রশীদ চৌধুরী ও ডাক্তার সামন্ত লাল সেন। রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচিত সংবাদ