১২ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঠাকুরগাঁওয়ে নির্যাতনের শিকার এক গৃহবধু

ঠাকুরগাঁওয়ে নির্যাতনের শিকার এক গৃহবধু

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও ॥ সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের জামুড়ী পাড়া গ্রামে প্রভাবশালী এক মহড়ার (মুহুরী) কাছে নির্যাতনের শিকার হয়ে এক গৃহবধু গত পাঁচদিন ধরে খোলা আকাশের নীচে অবস্থান করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। আইনের আশ্রয় নেয়াই যেন তার অপরাধ- এমটাই মনে করছেন নির্যাতিত ওই নারীর পরিবার।

নির্যাতিত ওই নারী অভিযোগ করে বলেন, সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের জামুড়ী পাড়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের সাথে ১৮বছর আগে বিয়ে হয়। তার স্বামী একজন সরকারি চাকুরীজীবি। সে নিজেও একটি বে-সরকারি উন্নয়ন সংস্থায় কর্মরত ছিলেন। যা কোন দিনই শ্বশুরবাড়ীর লোকজন ভাল ভাবে,মেনে নিতে পারেননি।

এ নিয়ে সংসারে চলছিল অশান্তি। শত নির্যাতন সহ্য করেও দীর্ঘ ১৮ বছর কাটিয়ে দেন তিনি। তার দুই ছেলে। বড় ছেলের বয়স ১৭ ও ছোট ছেলের বয়স ১৪। স্বামী ও শ্বশুরবাড়ীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে পরিশেষে আইনের আশ্রয় নেন। এতে স্বামী কিছু দিন হাজত বাস করেন। ফলে অশান্তি আরো দ্বিগুন হয়।

ওই নারী কেঁদে কেঁদে বলেন, আইনের আশ্রয় নেয়া কি আমার অপরাধ ? এক পর্যায়ে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে এবং মামলা থেকে রক্ষা পেতে তার স্বামী তার সাথে সমঝোতা করে। মুসলিম রীতিনীতি অনুযায়ী তিনি পূনরায় বিয়ে করেন। যার প্রেক্ষিতে একটি মামলাও নিষ্পত্তি হয়। গত শুক্রবার দেলোয়ার তার পূর্বের বউকে নিজ বাড়ীতে নিয়ে গেলে পরিবারের লোকজন তাকে মারপিট করে। দেলোয়ারের বড় ভাই হাফিজুর রহমান মহড়া ঘরের দর্জায় তালা দিয়ে তাকে মারপিট করে বাইরে বের করিয়ে দেয়।

এর পর ওই গৃহবধূকে স্বামীর বাড়িতে ঢুকতে না দেওয়ায় তিনি পাঁচদিন ধরে স্বামীর বাড়ির সামনে খোলা আকাশের নীচে অবস্থান করছেন। পাড়া প্রতিবেশিরা তাকে খাওয়া সরবরাহ করছেন।

এ ব্যাপারে কথা বলতে দেলোয়ার হোসেনের মুঠো যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি। এ প্রসঙ্গে দেলোযারের ভাই হাফিজুর রহমানের (মহড়া) সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি রাগান্নিত হয়ে বলেন, বিষয়টি জেলা আওয়ামীলীগের এক ক্ষমতাশীল নেতা দেখছেন। আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আইনের মাধ্যমে তা সমাধান হবে।

এ প্রসঙ্গে সদর থানার ওসি অপারেশ গোলাম মর্তুজা বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।