১১ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাঙ্গার উক্তি গর্হিত ও ক্ষমাহীন কাজ ॥ নাসিম

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে শহীদ নূর হোসেনকে নিয়ে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গার আপত্তিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা। জোটের কেন্দ্রীয় মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম বলেন, মশিউর রহমান রাঙ্গার এ ধরনের উক্তিতে প্রমাণিত হয়েছে যে, তাদের স্বৈরাচারী চরিত্রের এখনও পরিবর্তন হয়নি।

মঙ্গলবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাসদের কার্যকরী সভাপতি সদ্য প্রয়াত মইনউদ্দিন খান বাদলের স্মরণে ১৪ দল আয়োজিত শোক সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে মোহাম্মদ নাসিম প্রশ্ন রেখে বলেন, শহীদ নূর হোসেন রাজপথে জীবন দিয়েছেন। অথচ সেই নূর হোসেনকে নিয়ে জাপার মহাসচিব এমন মন্তব্য কিভাবে করলেন? অর্বাচীন রাজনীতিকের মতো তার এই বক্তব্যে ১৪ দল বিস্মিত হয়েছে। এটা গর্হিত ও ক্ষমাহীন কাজ। নূর হোসেনকে নিয়ে ওই উক্তির জন্য রাঙ্গাকে প্রকাশ্যে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি নিস্তেজ হলেও নিঃশেষ হয়ে যায়নি। দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে তারা। এক্ষেত্রে তারা এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বেছে নিয়েছে। তবে তাদের এই ঘৃণ্য অপচেষ্টা কখনও সফল হবে না। তিনি বলেন, অসাম্প্রদায়িক শোষণমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে ১৪ দল শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করছে। মইনউদ্দিন খান বাদলের স্মরণ করে তিনি বলেন, মইনউদ্দিন খান বাদল সব সময়ই অসম্প্রদায়িক শোষণমুক্ত বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখতেন। তুখোর পার্লামেন্টারিয়ান ছিলেন তিনি। সব সময় দুর্নীতির বিরুদ্ধে, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে তিনি কথা বলতেন। ১৪ দলের নানা সঙ্কটে বাদল সব সময় এগিয়ে এসেছেন, সব সময় ১৪ দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখার জন্য কাজ করে গেছেন।

আওয়ামী লীগের অপর সভাপতিম-লীর সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, মইনউদ্দিন খান বাদল ছিলেন একজন বিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ান। তার বক্তব্যে সংসদ প্রাণ পেত। মইনউদ্দীন খান বাদলের তথ্যবহুল বক্তব্য সবাই মনোযোগ দিয়ে শুনতেন। আমার দেখা বাংলাদেশের সেরা কয়েকজন পার্লামেন্টারিয়ানের মধ্যে বাদল একজন। সংসদে তার বক্তব্য ছিল বস্তুনিষ্ঠ, জোরালো ও যুক্তিনির্ভর।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, জাতীয় সংসদে বক্তব্যের সময় সব সময়ই মইনউদ্দিন খান বাদল আলোড়ন সৃষ্টি করে গেছেন। অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক সকল আন্দোলনে অগ্রসেনানী ছিলেন তিনি। জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, বাংলাদেশের ঐতিহাসিক ঘটনাগুলোর সাক্ষী মইনউদ্দীন খান বাদল। সকল আন্দোলন সংগ্রামে সাহসীকতার সঙ্গে অগ্রসর হয়েছেন, কোন দিন পিছপা হননি। তিনি বলেন, সারাদেশে যখন শুদ্ধি অভিযান চলছে, বিএনপি জামায়াতের নানা চক্রান্ত হচ্ছে এমন সময় বাদল সাহেব আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন সব সময় তাকে স্মরণ করবে।

বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরিফ নূরুল আম্বিয়া বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে মইনউদ্দীন খান বাদল জাতীয় সংসদে তত্ত্ব ও উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বক্তব্য উপস্থাপনের ভিত্তি রচনা করতেন, যা মানুষের মর্মকে স্পর্শ করত।

১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভা-ারী, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডাঃ শাহাদাত হোসেন, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, গণআজাদী লীগের সভাপতি এসকে শিকদার, জাতীয় পার্টির (জেপি) প্রেসিডিয়াম সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা, বাসদের রেজাউর রশীদ খান, আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। আলোচনার শুরুতে মইনউদ্দিন খান বাদলের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং সোমবার রাত পৌনে তিনটার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

নির্বাচিত সংবাদ