০৮ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সরকারের জবাবদিহিতা নিশ্চিতে সংসদ গুরুত্বপূর্ণ

  • রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে স্পীকার

সংসদ রিপোর্টার ॥ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, সংসদ, নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগ জনগণের স্বার্থেই কার্য সম্পাদন করে থাকে। সরকারের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে সংসদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সংসদ সদস্য ও জনপ্রতিনিধিরা জনগণের কল্যাণে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল এ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিস) এবং ভারতের অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের (ওআরএফ) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগ-২০১৯’ অনুষ্ঠানের ‘হোনিং লেজিসলেটিভ ইনোভেশন : পার্লামেন্টারি ডিপোমেসি ফর দ্য ফিউচার’ শীর্ষক ওই সেশনে অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, নাহিম রাজ্জাক, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, সাবেক সচিব এনআই খান, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্পীকার বলেন, বাজেট প্রণয়নসহ জনগুরুত্বপূর্ণ আইন পাসের ক্ষেত্রে সংসদের ভূমিকা মুখ্য। দেশগুলোর মাঝে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সংসদীয় কূটনীতি ভূমিকা রাখছে এবং আইপিইউ, সিপিএ ও পিইউআইসি এক্ষেত্রে কাজ করছে।

সংসদীয় কূটনীতি তথা আলোচনা ও সমঝোতার মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের বিরাজমান সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বহুপাক্ষিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন, রোহিঙ্গা সঙ্কট, বৈশ্বিক উষ্ণতা, শক্তি নিরাপত্তা, গ্রীন হাউস গ্যাস নিঃসরণ, মানব পাচার ও খাদ্য নিরাপত্তার মতো বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জগুলো সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করতে হবে। এর মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের জন্য একটি অধিকতর নিরাপদ ও বাসযোগ্য পৃথিবী নিশ্চিত করা যাবে। উল্লেখ্য, ইন্দোএশিয়া অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে শিল্প, বাণিজ্য, অর্থনীতি, জলবায়ু, অভিবাসন ও সুশাসন নিয়ে পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে সমৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগ-২০১৯’। গত সোমবার এই সংলাপের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিন দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন ৪০ দেশের ১৫০ প্রতিনিধি।

আইসিআরসি প্রতিনিধি দলের সাক্ষাত ॥ স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপির সঙ্গে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেডক্রস (আইসিআরসি) প্রতিনিধিদলের প্রধান মি. পিয়ের দ্যোখব সৌজন্য সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতকালে তারা বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, রেডক্রসের কার্যক্রম, হুইল চেয়ার বাস্কেটবল টুর্নামেন্টসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

এ সময় স্পীকার বলেন, রেডক্রসের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়কাল থেকে রেডক্রস বাংলাদেশে কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। দুর্যোগ মোকাবেলায় এ সংস্থা অতীতের মতো ভবিষ্যতেও জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পিয়ের দ্যোখব বলেন, বাংলাদেশ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় রোলমডেল। এক্ষেত্রে রেডক্রস দুর্যোগ মোকাবেলায় গতিশীল এবং কার্যকর ভূমিকা রাখছে। তিনি তরুণ সংসদ সদস্যদের নিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক একটি কর্মশালা আয়োজনের আগ্রহ প্রকাশ করেন।