১৪ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেনিস থেকে সিবুলকোভার বিদায়

  • আয়ান আব্রাজ

টেনিসকে বিদায় বললেন ডোমিনিকা সিবুলকোভা। সম্প্রতি হঠাৎ করেই এমন সিদ্ধান্ত নিলেন স্লোভাকিয়ার এই তারকা খেলোয়াড়। সর্বশেষ চলতি বছরের মে মাসে কোর্টে নেমেছিলেন সিবুলকোভা। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার। ফ্রেঞ্চ ওপেনের শুরুটা মোটেও ভাল করতে পারেননি তিনি। বেলারুশের এ্যারিনা সাবালেঙ্কার কাছে হেরে সেই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নেন ৩০ বছরের এই টেনিস তারকা। তবে সেই ইভেন্টই যে তার ক্যারিয়ারের শেষ টুর্নামেন্ট হবে নিজের টিম ছাড়া কাউকেই জানাননি সিবুলকোভা। যে কারণেই বিদায় বেলায় এই বিষয়টাকে অদ্ভুত বলে মন্তব্য করেছেন ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার এই তারকা খেলোয়াড়।

এ প্রসঙ্গে ডোমিনিকা সিবুলকোভা বলেন, ‘আমি জানতাম। আমার টিমও বিষয়টা জানাত। কিন্তু এছাড়া আর কেউ জানেনি যে সেটাই হবে আমার ক্যারিয়ারের শেষ টুর্নামেন্ট। এ বিষয়টি সত্যিই অবাক করার মতো। সেই সময়ে আমি ১০০ ভাগ নিশ্চিত ছিলাম। হ্যাঁ বলব নাকি না বলব এ নিয়ে আমার মধ্যে কোন রকমের সংশয় ছিল না। কেননা, আমি জানতাম যে এমনটাই হবে আমার। আমার জন্য এটাই হবে শেষ টুর্নামেন্ট। সেই টুর্নামেন্টের শেষে আমি বাড়ি ফিরে যাই এবং আমার সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি খুব সুখেই ছিলাম।’ নামের পাশে কোন গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট নেই ডোমিনিকা সিবুলকোভার। তবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালের টিকেট কেটেছিলেন তিনি। ২০১৪ সালে। সেই ফাইনালের টিকেট কেটেই ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছিলেন সিবুলকোভা। স্লোভাকিয়ার প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার। শিরোপার লড়াইয়ে সেবার চীনের লি নার কাছে হেরে যান ডোমিনিকা। সেই লি নাও টেনিসকে বিদায় বলেছেন আরও আগে। সুদীর্ঘ পেশাদার ক্যারিয়ারে ২১টি একক টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেছেন তিনি। হার্ড-ঘাস এবং ইন্ডোরে তার শিরোপা জয়ের সংখ্যা ৮। ক্যারিয়ার সেরা র‌্যাঙ্কিং তার চতুর্থ। ২০১৭ সালের ২০ মার্চ অসামান্য এই কীর্তি গড়েছিলেন তিনি। স্লোভাক প্রজাতন্ত্রের হয়ে কোন খেলোয়াড়ের জন্য এখন পর্যন্ত এটাই সেরা র‌্যাঙ্কিং। তবে শেষটা মোটেও ভাল ছিল না ডোমিনিকা সিবুলকোভার। অবসরের সময়ে শীর্ষ ৩০০ জনের তালিকাতেও ছিল না তার নাম। সর্বশেষ প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিং অনুযায়ী ডোমিনিকা সিবুলকোভার অবস্থান ৩১৫ নম্বরে।

ডোমিনিকা সিবুলকোভার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বড় শিরোপা ডব্লিউটিএ ফাইনালস। ২০১৬ সালে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত বছরের শেষ বড় এই আসরের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছিলেন তিনি। সেই টুর্নামেন্টের ফাইনালে সিবুলকোভা জার্মানির এ্যাঞ্জেলিক কারবারকে হারিয়েছিলেন। যখন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ছিলেন জার্মানির এই তারকা খেলোয়াড়। সেই বছরে ডব্লিউটিএ ফাইনালস ছাড়াও আরও তিনটি শিরোপার দেখা পেয়েছিলেন তিনি। এছাড়া বাকি চার শিরোপা ছিল বাকি চার বছরের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে। তার ক্যারিয়ারের প্রথম ট্রফিটা এসেছিল ২০১১ সালে মস্কোতে। ২০১২ সালে কার্লসবাদে চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। পরের দুই বছরে যথাক্রমে স্ট্যানফোর্ড এবং একাপুলকোতে শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন সিবুলকোভা। স্লোভাকিয়ার হয়ে দুটি অলিম্পিকেও প্রতিনিধিত্ব করেছেন সিবুলকোভা। ২০০৮ সালে বেজিং অলিম্পিকের পর ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিকেও অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, ভিন্ন ভিন্ন ১২ বছরে স্লোভাক প্রজাতন্ত্রের হয়ে ফেড কাপে খেলেছেন সিবুলকোভা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনাল ছাড়াও তিনি ২০০৯ সালে রোঁলা গ্যাঁরোর সেমিফাইনাল খেলেছিলেন। তিন বার খেলেছেন উইম্বলডনের কোয়ার্টার ফাইনাল। ২০১০ সালে ইউএস ওপেনের শেষ আটেও জায়গা করে নিয়েছিলেন স্লোভাকিয়ার এই তারকা খেলোয়াড়। তবে দুর্ভাগ্য তার। ক্যারিয়ারের শেষ সময়টাতে টেনিস কোর্টে নিয়মিত খেলতে পারেননি তিনি। যদিওবা তা নিয়ে কোন রকমের আফসোস নেই তার।

সিবুলকোভা যখন টেনিস থেকে বিদায় নিচ্ছেন তখন আবারও কোর্টে ফেরার স্বপ্নে বিভোর কিম ক্লাইস্টার্স।