০৮ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইরানে অনুষ্ঠেয় জুনিয়র বিশ্বকাপ কাবাডির তাম্রপদকজয়ী বাংলাদেশ দলকে সংবর্ধনা

ইরানে অনুষ্ঠেয় জুনিয়র বিশ্বকাপ কাবাডির তাম্রপদকজয়ী বাংলাদেশ দলকে সংবর্ধনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ “সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসে কাবাডি দল স্বর্ণপদক জয়ের জন্যই যাচ্ছে। আশা করি কাক্সিক্ষত ফল নিয়ে দেশে ফিরতে পারবে খেলোয়াড়রা’, বুধবার পুলিশ হেড কোয়ার্টারে জুনিয়র বিশ্বকাপ কাবাডিতে ব্রোঞ্জজয়ী খেলোয়াড়দের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কথাগুলো বলেন পুলিশের মহাপরিদর্শক ও কাবাডি ফেডারেশনের সভাপতি ড. জাবেদ পাটোয়ারি। তিনি আরও বলেন, ‘কাবাডিতে আরও বেশি পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন। দেশের জাতীয় এই খেলাটিতে জোয়ার আনতে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।’ পুলিশ হেডকোয়ার্টারে অবস্থিত সংবাদ সম্মেলনে জুনিয়র বিশ্বকাপ কাবাডিতে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ জুনিয়র কাবাডি দল তাম্রপদক পাওয়ায় তাদেরকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। প্রত্যেক খেলোয়াড় এবং কোচকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থ পুরস্কার দেয়া হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার), এশিয়া কাবাডি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি আমির হোসেন পাটোয়ারী, ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক ও অতিরিক্ত ডিআইজি ( ডেভেলপমেন্ট) গাজী মোজাম্মেল হক প্রমুখ।

এসএ গেমসে অংশ নেয়ার আগে বিশেষ প্রশিক্ষণে মাসাধিককাল আগেই ভারত গেছে পুরুষ ও নারী কাবাডি দল। সেখানে ভারতীয় কোচ সাজুরামের তত্বাবধানে বিশেষায়িত অনুশীলন করছেন কর্মকর্তারা। এবার গেমসে অংশ নেয়ার পালা। তাই জাতীয় দলও ঘোষণা করে দিলেন ড. জাবেদ পাটোয়ারি। এতদিন নারী কাবাডি দলের সঙ্গে সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করেছেন অধিনায়ক শাহনাজ পারভীন মালেকা। গেমসে দলের সঙ্গে তিনিও খেলবেন।

আসন্ন এসএ গেমসে বাংলাদেশ পুরুষ ও নারী জাতীয় কাবাডি দল অংশ নেবে। ভারত এবার কাবাডিতে অংশ নেবে না। এজন্য আমরা এই ইভেন্টে স্বর্ণজয়ের প্রত্যাশা করছি। পুরুষ ও নারী দল এখন ভারতে প্রশিক্ষণরত আছে।

এস এ গেমসে বাংলাদেশ পুরুষ ও নারী দু’দলেরই প্রধান কোচ ভারতীয় সাজু রাম। এতে তার মনযোগে সমস্যা হবে কিনা জানতে চাইলে ড. জাবেদ পাটোয়ারি বলেন, “প্রধান কোচ একজন হলেও ওনার সহকারী দু’জন। তাই কোন সমস্যা হবে না।” তিনি যোগ করেন, “এখন কেবল কাবাডিই নয়, ক্রিকেট, ফুটবলসহ নানা ডিসিপ্লিনে পুলিশ ক্লাব খেলছে এবং পদকও জিতে আনছে।”

ড. জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার) তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, “কাবাডি আমাদের জাতীয় খেলা। গ্রাম-গঞ্জ থেকে শুরু করে সব ধরনের মানুষেল কাছে জনপ্রিয়তা থাকারও পর নানা কারণে কাবাডি তার কাংখিক লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। আমরা নিরলসভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি কাবাডির সেই হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে। প্রতি বছর আমরা ঘরোয়া পর্যায়ে বছরে ১০-১২টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করছি। এছাড়া বাংলাদেশ দল দেশের বাইরেও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে। এমনকি খেলোয়াড়রা বিদেশের কাবাডি লিগেও খেলছেন। এছাড়া জাতীয় দলের জন্য এবারই প্রথম বিদেশী (ভারতীয়) কোচ এনেছি। এই কোচিং স্টাফের অধীনেই নেপালে অনুষ্ঠেয় এসএ গেমসের প্রস্তুতি বেশ ভালভাবেই এগিয়ে চলছে। সর্বোপরি কাবাডি খেলায় এবং ফেডারেশনের কার্যক্রমে আমরা পুরোপুরি একটি পেশাদারিত্বের চিত্র ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করছি। আমি মনে করি সেই লক্ষ্যে আমরা ইতোমধ্যেই অনেকদূর এগিয়েছি।”

ভারতের হরিয়ানায় বাংলাদেশের ৫০ কাবাডি খেলোয়াড় নিয়ে (জাতীয় দল পুরুষ/মহিলা/অ-২০ দল, কোচিং স্টাফসহ) প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে নিবিড় অনুশীলন করছেন। ওই ক্যাম্প থেকেই গত ৯-১৫ নভেম্বর ইরানে অনুষ্ঠেয় জুনিয়র বিশ্বকাপ কাবাডিতে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ দল তাম্রপদক পেয়ে বিশ্ব কাবাডিতে নতুন শক্তির জানান দিয়েছে।

এসএ গেমস ছাড়াও আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য পুরুস কাবাডি বিশ্বকাপ, শ্রীলঙ্কায় একটি ৬ জাতির কাবাডি টুর্নামেন্ট ও এশিয়ান গেমসে ভালো ফলের লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ফেডারেশন দল প্রেরণ করতে চায়।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘মুজিব বর্ষ’ উদ্যাপনে দেশের মাটিতে একটি বড় মাপের আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজনসহ ঘরোয়া বেশকিছু প্রতিযোগিতা আয়োজনের পরিকল্পনা কাবাডি ফেডারেশনের আছে। মুজিব বর্ষকে কেন্দ্র করে সারাদেশের স্কুলগুলোকে নিয়ে একটি স্কুর কাবাডি প্রতিযোগিতা আয়োজনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে ফেডারেশন, যেখানে সারাদেশের প্রায় দেড় লাখ ছাত্র-ছাত্রী অংশ নেবে। দেশের ৫৫০ ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে এই প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগী ও ভেন্যু সংখ্যার বিচারে এটিই হবে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায় থেকে শুরু হয়ে রাজধানী ঢাকায় হবে চূড়ান্ত পর্ব। এই প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পর্যায়ের খেলা বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচারের ব্যবস্থাও নেয়া হবে।

এছাড়া আগামীতে বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশন প্রো-কাবাডি ফ্রাঞ্চাইজভিত্তিক টুর্নামেন্ট চালু করার লক্ষ্যে বেশ ভালোভাবেই কাজ করে যাচ্ছে।

এসএ গেমসে অংশ নেয়া বাংলাদেশ জাতীয় নারী কাবাডি দল : খেলোয়াড় : শাহনাজ পারভীন মালেকা, শারমিন সুলতানা রিমা, রূপালী আক্তার, শ্রাবণী মল্লিক, হাফিজা আক্তার, টুকটুকি আক্তার, দিসা মনি সরকার, লাকী আক্তার, স্বরসতী রানী রায়, বৃষ্টি বিশ্বাস, মেবি চাকমা, রেখা আক্তারী; প্রধান কোচ : সাজুরাম, কোচ : বজলুর রশিদ; ম্যানেজার : সৈয়দ তাসলিমা আক্তার।

এসএ গেমসে অংশ নেয়া বাংলাদেশ জাতীয় পুরুষ কাবাডি দল : খেলোয়াড় : মাসুদ করিম, জাকির হোসাইন, আনোয়ার হোসাইন, সবুজ মিয়া, আশরাফুল শেখ, মনিরুল চৌধুরী, আব্দুল মুমিন, ফেরদৌস শেখ, নসির উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম, হাসান আলী, জাবেদ শেখ; কোচ : বাদশা মিয়া, ম্যানেজার : শরীফ মোঃ আরিফ মিহির।