০৯ ডিসেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশব্যাপী জাতীয় আয়কর দিবস পালিত

দেশব্যাপী জাতীয় আয়কর দিবস পালিত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শনিবার সকালে দেশব্যাপী পালিত হয়েছে জাতীয় আয়কর দিবস-২০১৯। আয়কর বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি এবং মানুষকে নিয়মিত করদানে উৎসাহিত করতে ‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’- স্লোগানকে সামনে রেখে এ বছর দিবসটি পালিত হয়।

এবারের দিবসের নির্ধারিত প্রতিপাদ্য হলো ‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক রূপকল্প বাস্তবায়ন। 'শনিবার সকালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) প্রাঙ্গণে আয়কর দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন ঘোষণা করেন অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও এনবিআরের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। পরে বোর্ডের সামনে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে র্যালির উদ্বোধন করেন তিনি।

এরপর ঘোড়ার গাড়িতে করে র্যালিতে অংশ নেন চেয়ারম্যান। র্যালিতে নাট্য ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, সাহিত্যিকসহ সেলিব্রেটিরা অংশ নেন।

র্যালিটি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সামনে থেকে বের হয়ে মৎস্য ভবন, সুপ্রিম কোর্ট, জাতীয় প্রেসক্লাব হয়ে আবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

র্যালিতে আয়কর দিবসের স্লোগান সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড, পোস্টার নিয়ে বোর্ড ও বিভিন্ন কর অঞ্চলের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন।

র্যালিকে দৃষ্টিনন্দন করতে অংশগ্রহণকারীরা আয়করের স্লোগান সম্বলিত টি-শার্ট ও ক্যাপ পরিধান করেন। এছাড়া র্যালিতে আয়কর সচেতনতা বাড়াতে গান, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, ঘোড়ার গাড়ি, আনসার-ভিডিপি’র বাদক দল অংশ নেন।

ঢাকাসহ সব বিভাগীয় শহরেও জাতীয় আয়কর দিবসের বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়াও আয়করে সচেতনতা তৈরিতে মোবাইল এসএমএস দেওয়া হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও র‌্যালিতে অংশ নেন অভিনেতা ইনামুল হক, চিত্রনায়ক রিয়াজ, ওমর সানি, চিত্রনায়িকা মৌসুমী, অপু বিশ্বাস, বর্ষা, কণ্ঠশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, এসডি রুবেল, অভিনেতা জাহিদ হাসান, চঞ্চল চৌধুরী, নির্মাতা সালাউদ্দিন লাভলু প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, কর আহরণের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ কর বিভাগ করছে। তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে ১৬ কোটির বেশি জনগণ থাকলেও কর দেয় মাত্র এর এক শতাংশ। এটি আমাদের জন্য গৌরবের বিষয় নয়। এশিয়ার মধ্যে আমাদেরই সবচেয়ে কম সংখ্যাক মানুষ কর দেয়। তাই সরকার চাচ্ছে সবাই কর দিক। যদি আমরা স্থিতিশীল উন্নয়ন চাই তাহলে অবশ্যই কর জিডিপির অনুপাত বাড়াতে হবে। এ জন্য করযোগ্য সবাইকে কর দিতে হবে।