২২ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতীয় জলসীমায় চীনের আগ্রাসন, উত্তপ্ত লোকসভা

ভারতীয় জলসীমায় চীনের আগ্রাসন, উত্তপ্ত লোকসভা

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের জলসীমায় চীনের ‘আগ্রাসন’ নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে দেশটির সংসদ। এ নিয়ে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং কংগ্রেসের লোকসভা দলনেতা অধীর চৌধুরীর তোপের মুখে পড়েন। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

বুধবার অধীর সংসদে অভিযোগ করেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া মনোভাব থাকলেও চীনের প্রতি কেন্দ্র নমনীয়।

এমন প্রশ্নে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, দেশের নিরপত্তা বাহিনীর সদস্যরা সর্বদা কড়া নজর রাখেন। এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী যুক্তি দেখিয়ে বলেন, বহু জায়গায় চীনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত নির্দিষ্ট না থাকায় অনেক সময় এ সমস্যা হয়।

এর আগে, মঙ্গলবার নৌসেনা প্রধান অ্যাডমিরাল করমবীর সিং বলেছেন, দিল্লির অনুমতি না নিয়ে সম্প্রতি ভারত মহাসাগরে ভারতীয় জলসীমায় ঢুকে পড়েছিল ‘শি ইয়ান ১’ নামে একটি চীনা জাহাজ। পরে সেটিকে তাড়া করে নৌবাহিনী ভারতীয় জলসীমার বাইরে পাঠিয়ে দিয়েছে। শুধু এটিই নয়, মাঝেমধ্যেই এই রকম চীনা জাহাজ ঢুকে পড়ে বলেও জানিয়েছেন নৌসেনা প্রধান।

এ দিন সংসদে এই নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন, পাকিস্তান জঙ্গিদের আশ্রয় দেয়, আর চীন দেয় পাকিস্তানকে। আন্দামান-নিকোবর অঞ্চলে জাহাজ পাঠাচ্ছে চীন। যখন পাকিস্তানের প্রশ্ন ওঠে, তখন আমরা কড়া অবস্থান নেই। কিন্তু চীনের ক্ষেত্রে অনেক নমনীয় অবস্থান নেওয়া হয় কেন? জাহাজ ঢুকে পড়ার ঘটনাকে ‘দেশের নিরাপত্তার প্রশ্নে অত্যন্ত গুরুতর’ বিষয় বলেও মন্তব্য করেন বহরমপুরের এ সাংসদ।

জবাবে রাজনাথ সিং বলেন, ভারত-চীনের মধ্যে পারস্পারিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে কোনও লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এলএসি) বা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা নেই। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা নিয়ে মতভেদের জন্যই মাঝেমধ্যে চীনা অনুপ্রবেশ ঘটে। আমি সেটা মানি। কখনও চীনের সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ে, কখনও বা ভারতীয় বাহিনী চীনের সীমান্ত পার হয়ে যায়। তবে দেশের ঐক্য, নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ভারত-চীন সীমান্ত এলাকায় রাস্তা, টানেল, রেললাইন, এয়ার বেস তৈরির মতো পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ চলছে।