২৯ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে নতুন রেকর্ডের অপেক্ষা

  • অংশ নেবেন হাইভোল্টেজ নেতারা ;###;কাল রবিবার সম্মেলন

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল ॥ ঐতিহাসিক দিনে (বরিশাল মুক্ত দিবসে) অনুষ্ঠিত হবে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। আর এ আয়োজন হবে মহানগর আওয়ামী লীগের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ আয়োজন। তাই এ সম্মেলনকে ঘিরে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে নগরজুড়ে।

আগামীকালকের (৮ ডিসেম্বর) সম্মেলনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় শীর্ষ নেতাদের মিলন মেলায় রূপ নিতে যাচ্ছে মহানগর। সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক, উপদেষ্টা, প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ হেভিওয়েটের নেতারা অংশগ্রহণ করবেন। এছাড়া ইতিহাসের সর্ববৃহৎ আয়োজনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বরিশাল বিভাগের সকল নেতাদের।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ ২০১২ সালে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সম্মেলনে বিসিসির সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরন সভাপতি ও আফজালুল করিম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। শওকত হোসেন হিরনের মৃত্যুর পর মহানগর আওয়ামী লীগের নতুন কমিটি গঠণ করা হলেও সেক্ষেত্রে সম্মেলন বা ভোটাভুটি হয়নি। সে হিসেবে টানা সাত বছর পরে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। তাই সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার কোন কমতি নেই। ইতোমধ্যে নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন সম্পন্ন করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পূর্বে নগরীর সদর রোডস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জেলা ও মহানগর সম্মেলন এক সঙ্গে হয়েছিল। এবার সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে নগরীর ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু উদ্যানে। ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধু উদ্যানের বিশাল এলাকাজুড়ে প্যান্ডেল ও বিশাল অস্থায়ী মঞ্চ নির্মাণের কাজ শেষ করা হয়েছে। তাছাড়া সম্মেলনকে ঘিরে রহমতপুরে বরিশাল বিমানবন্দর এলাকা থেকে বঙ্গবন্ধু উদ্যান পর্যন্ত মহাসড়কের উপরে নির্মাণ করা হয়েছে একের পর এক দৃষ্টিনন্দন তোড়ন। সদর রোড, জিলা স্কুল মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে দৃষ্টিনন্দন তোড়ন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে গত এক সপ্তাহ পূর্বে। একইসঙ্গে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাকে আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানায়, আগামীকাল ৮ ডিসেম্বর বরিশাল মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এইদিনে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি হানাদাররা পরাস্থ হয়েছিল বরিশালের মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে। তাই মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের জন্য এই দিনটিকেই বেছে নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সম্মেলনকে স্মরণীয় করে তুলতে আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতাদের মিলন মেলা করার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। আর সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি। সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাসিম। পাশাপাশি বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি, আমির হোসেন আমু এমপি, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য মেজর (অব.) হাফিজ মল্লিক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পদক শাম্মি আহম্মেদ, সদস্য গোলাম কিবরিয়া চিনু, গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী স.ম রেজাউল করিমসহ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা। এর বাইরে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলার আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা, মন্ত্রী এবং এমপিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা জানিয়েছেন, বরিশাল মহানগরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ঐতিহাসিক দিনে অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলনকে ঘিরে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। কেননা বেশ কিছুদিন ধরে কমিটির সভাপতি এ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল রয়েছেন ঢাকায়। সাধারণ সম্পাদক একেএম জাহাঙ্গীর হোসেন রয়েছেন তার আইন পেশা নিয়ে। যে কারণে সকল দায়দায়িত্ব আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহকেই সামলাতে হচ্ছে। মেয়র হিসেবে নগরবাসীর ভালমন্দ দেখভালের পাশাপাশি সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে তিনি দিন রাত সমানতালে পার করছেন। অনেকটা দম ফেলার সময় পাচ্ছেন না তরুণ ও উদ্যোমী এই নেতা। সূত্রমতে, ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার আগ থেকেই আলোচনায় ছিলেন রাজনৈতিক পবিারের সন্তান সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। তৃণমূলের নেতাকর্মীদের চাওয়াকে গুরুত্ব দিয়ে তাকে (সাদিক আব্দুল্লাহ) আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত প্রার্থী করা হয়। এরপর বিপুল ভোটে এ তরুণ নেতা বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন। দায়িত্ব গ্রহণের পর তিনি যেমন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনকে ঢেলে সাজাতে কাজ করছেন, তেমনি একজন রাজনীতিবিদ হিসেবেও নিজের প্রাণপ্রিয় সংগঠনের কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করতে নিরলসভাবে কাজ করছেন সাদিক আব্দুল্লাহ। বর্তমানে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ।

সূত্রে আরও জানা গেছে, গত ১২ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের ৩০টি ওয়ার্ডের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনেও ছিল সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর সরব উপস্থিতি। প্রতিটি ওয়ার্ড সম্মেলনে তার তারুণ্যদীপ্ত কণ্ঠ নজর কেড়েছে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের। যেখানেই যাচ্ছেন নেতাকর্মীরা তাকে ঘিরেই আগ্রহ দেখাচ্ছেন। মহানগর আওয়ামী লীগের একটি সফল সম্মেলন উপহার দিতে তিনি রাত দিন পরিকল্পনা করছেন। মঞ্চ সজ্জা, অতিথিদের অভ্যর্থনা, শৃঙ্খলা, আপ্যায়ন, সার্বিক ব্যবস্থাপনাসহ সবদিকেই তাকে নজর দিতে হচ্ছে। মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ বয়সে তরুণ হলেও একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে নিজের পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমের সাথেও নিজেকে যুক্ত রেখেছেন। ফলে স্থানীয় জনগণও তার এ অংশগ্রহণ সাদরে গ্রহণ করছেন।

নির্বাচিত সংবাদ