২৮ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগ স্বাগত জানায়

বাংলাদেশ সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগ স্বাগত জানায়
  • ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্সের সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি

জনকণ্ঠ ডেক্স ॥ বাংলাদেশে সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য বিনিয়োগকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ।

মঙ্গলবার ঢাকা ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে এশিয়া-প্যাসিফিক কনফারেন্স অন ‘ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুসিভ এ্যান্ড সাসটেইনেইবল ডেভেলপমেন্ট’ শীর্ষক এক সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান। খবর বিডি নিউজের।

ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স, বাংলাদেশের আয়োজনে এ সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ বিশ্ব অর্থনৈতিক সম্প্রদায়ের সক্রিয় সদস্য হতে চায়।

‘উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে আমরা অন্যতম মুক্ত অর্থনীতির দেশ এবং এ প্রক্রিয়ায় থাকতে চাই। বাংলাদেশ সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগকে স্বাগত জানায়। সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের সুরক্ষায় সরকার সব রকমের সহযোগিতা দিচ্ছে। বাংলাদেশ সরকার খুবই নমনীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ নীতি গ্রহণ করেছে।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, এ অঞ্চলের মধ্যে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রগতি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেক সমস্যা মোকাবেলা করে কয়েক বছর ধরে জিডিপির উচ্চ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পেরেছে। দারিদ্র্যের হার কমে গেছে।

বাংলাদেশ বাণিজ্য ও বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ গড়ে তুলেছে জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, এর ফলে সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগ ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে ৫৮ শতাংশ বেড়েছে। আরও বিদেশী এবং অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ আকর্ষণ করতে বাংলাদেশ ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে।

বাংলাদেশের উন্নয়নে সরকার গৃহীত পদক্ষেপ তুলে ধরে আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে সরকার ভিশন ২০২১ এবং ভিশন ২০৪১ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে।

‘সহস্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের মতো বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনেও সক্ষম হবে এবং উন্নত দেশে পরিণত হবে।’ উন্নয়নশীল দেশগুলোর অর্থায়নের সমস্যার কথা তুলে ধরে আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর প্রধান চ্যালেঞ্জ হলো প্রয়োজনীয় অর্থায়নের অভাব। প্রয়োজনীয় অর্থায়নের যোগান দেয়া কোন একক দেশের পক্ষে সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে প্রয়োজন উন্নয়নশীল ও উন্নত দেশগুলোর পারস্পরিক সহযোগিতা এবং বেসরকারী ও উন্নয়ন সংস্থার সহায়তা। ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্সের শতবর্ষ পূর্তি এবং এর বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের ২৫ বছর পূর্তিতে সংগঠনটিকে অভিনন্দন জানান আবদুল হামিদ।

অন্যদের মধ্যে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারী শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, আইসিসি বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মাহবুবুর রহমান, জাতিসংঘের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশনের (ইউএন-এসকাপ) আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল আরমিডা সালসিয়া আলিশজাবানা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

বাংলাদেশ সরকার, ইউএন-এসকাপ ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলন আয়োজনে সহায়তা করেছে।

এই মাত্রা পাওয়া