২৬ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সানাউল হকই ডিএসইর এমডি হচ্ছেন

 সানাউল হকই ডিএসইর  এমডি হচ্ছেন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ অবশেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নিয়োগের বিষয় চূড়ান্ত করেছে পরিচালনা পর্ষদ। ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হককে নতুন এমডি হিসাবে নির্বাচিত করেছে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। বৃহস্পতিবার ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ডিএসই জানায়, আগামী ১২ জানুয়ারি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) নতুন এমডি নিয়োগের অনুমোদন চেয়ে চিঠি দেবে ডিএসই। এতে কাজী সানাউল হককে নিয়োগ দেওয়ার পক্ষে-বিপক্ষে বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ডিএসইর এমডি পদে নিয়োগ দিতে দুই জনকে বাছাই করে নমিনেশন অ্যান্ড রিমুনারেশন কমিটি (এনআরসি) । বিএসইসি এমডি নিয়োগের জন্য ডিএসইকে আগামী ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল। এ সময় ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) আব্দুল মতিন পাটোয়ারী। আলোচ্য সময়ের মধ্যে এমডি নিয়োগে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ডিএসইকে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

উল্লেখ্য, এর আগে দুই দফায় বিজ্ঞপ্তি দিয়েও যোগ্য এমডি খুঁজে পায়নি ডিএসই। অন্যদিকে ডিএসইর এমডি পদে যোগ্য ব্যক্তিকে নিয়োগ দিতে বেতনভাতা থেকে যাবতীয় সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর সুপারিশ করতে যাচ্ছে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। এমডি নিয়োগে পত্রিকায় দুই দফা বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল ডিএসই। দুই দফায় আবেদন থেকে ৭ জন প্রার্থীকে প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হয়। এসব প্রার্থীদের সাক্ষাতকার নিয়ে প্রাথমিকভাবে ৩ জনের নাম চূড়ান্ত করে পর্ষদে পাঠায় নিয়োগ সংক্রান্ত নমিনেশন অ্যান্ড রিমুনারেশন কমিটি (এনআরসি)। কিন্তু এ তিনজন প্রার্থী থেকে এমডি নিয়োগে সক্ষম হয়নি পর্ষদ। আর এজন্য এ পদে নিয়োগের জন্য ৩ মাস সময়ের জন্য বিএসইসিতে আবেদন করার সিদ্ধান্ত নেয় ডিএসই।

অভিযোগে জানা গেছে, কাজী সানাউল হককে নিয়োগের বিষয়ে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের একটি অংশের ঘোর আপত্তি ছিল। যা নিয়ে বৃহস্পতিবারের পর্ষদ সভায় আলোচনা হয় এবং পর্ষদের সদস্যদের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। এর মধ্য দিয়েই কাজী সানাউল হককে এমডি পদে নিয়োগ দেওয়ার অনুমোদন চেয়ে বিএসইসিতে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিএসই। চিঠিতে কাজী সানাউল হককে নিয়োগ দিতে চাওয়ার পক্ষের এবং তাকে নিয়োগ দিতে না চাওয়ার বিপক্ষের বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে।

ডিএসইর এক কর্মকর্তা বলেন, কাজী সানাউল হককে নিয়ে অনেকের মধ্যে আপত্তি ছিল। কিন্তু উপরের চাপ (বিশেষ মহল) আছে এমন যুক্তিতে একজন শেয়ারহোল্ডার পরিচালক তার নিয়োগে শুরু থেকেই কাজ করছিলেন। অনেকটা তার ইচ্ছাতেই সানাউলকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

উপরের চাপের বিষয়টিকে সন্দেহজনক বলে মনে করেন ডিএসইর এক কর্মকর্তা। তিনি বলেন, কাজী সানাউল হককে নিয়োগের জন্য ডিএসইর ওই পরিচালক নিজেই এমনটি বানিয়ে বলে থাকতে পারে। উপরের চাপ আছে বললেও উনি চাপকারীর নাম বলেন না। এছাড়া কাজী সানাউলকে নিয়োগের জন্য পর্ষদের অন্য কারো কাছে সুপারিশ বা চাপ আসেনি।

নির্বাচিত সংবাদ