১৮ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রথম কিস্তিতে সাড়ে ২৭ কোটি দিল রবি

প্রথম কিস্তিতে সাড়ে ২৭ কোটি দিল রবি

অনলাইন রিপোর্টার ॥ বিটিআরসি’র ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকার নিরীক্ষা দাবির মধ্য থেকে হাই কোর্টের নির্দেশে ১৩৮ কোটি টাকার প্রথম কিস্তি পরিশোধ করেছে বেসরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর রবি। পাঁচ কিস্তির মধ্যে রবি তাদের প্রথম কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা আজ মঙ্গলবার বিটিআরসিতে জমা দিয়েছে। বিটিআরসির তরফ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। গত ৫ জানুয়ারি বিটিআরসির ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকার নিরীক্ষা দাবির মধ্যে ১৩৮ কোটি টাকা কিস্তিতে পাঁচ মাসের মধ্যে পরিশোধের নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। তবে এ বিষয়ে অপারেটর রবির তাৎক্ষণিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আদেশের পর বিটিআরসির আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ এর আগে গ্রামীণফোনের ১২ হাজার কোটি টাকার নিরীক্ষা দাবির মধ্যে দুই হাজার কোটি টাকা অবিলম্বে পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছিল। সেই পরিপ্রেক্ষিতে হাই কোর্ট আনুপাতিক হিসাব করে রবিকে ১৩৮ কোটি টাকা দিতে বলেছে।

গত ৩১ জুলাই গ্রামীণফোনের কাছে নিরীক্ষা আপত্তি দাবির ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা এবং রবির কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাওনা দাবি করে চিঠি দেয় বিটিআরসি। কয়েক দফা চেষ্টায় সেই টাকা আদায় করতে না পেরে লাইসেন্স বাতিলের হুমকি দিয়ে নোটিশও পাঠানো হয় দুই অপারেটরকে। কিন্তু বিটিআরসির দাবি করা টাকার ওই অঙ্ক নিয়ে বরাবরই আপত্তি জানিয়েছে অপারেটর দুটি।

সালিশের মাধ্যমে বিষয়টির নিষ্পত্তিতে বিটিআরসি রাজি না হওয়ায় ওই দুই কোম্পানি আদালতের দ্বারস্থ হয়। বিটিআরসির দেয়া ওই নোটিশ চ্যালেঞ্জ করে নিম্ন আদালতে টাইটেল স্যুট (মামলা) করে রবি। মামলাটি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞাও চাওয়া হয়। কিন্তু নিম্ন আদালত রবির অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন খারিজ করে দিলে হাই কোর্টে আপিল করে তারা। সেই আবেদনের শুনানি করে হাই কোর্ট গত ২৫ নভেম্বর রুল জারি করে। রবির কাছ থেকে পাওনা আদায়ে বিটিআরসিকে বিরত থাকতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয় রুলে।

সেই রুলের ওপর আদেশ হওয়ার কথা ছিল ডিসেম্বরে। কিন্তু তা পিছিয়ে হয় ৫ জানুয়ারি। ওইদিন রুলের বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত না দিয়ে হাই কোর্ট গ্রামীণফোনের ক্ষেত্রে আপিল বিভাগের নির্দেশনার আদলে আদেশ দেয়।

নির্বাচিত সংবাদ