১৮ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্যাসিনো কাণ্ডের হোতা দুই ভাই এনু-রূপন ভূঁইয়া ৪ দিনের রিমান্ডে

  • সহযোগী সানি মোস্তফার রিমান্ড ৩ দিনের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আয়কর বিভাগের এক কর্মকর্তার পরামর্শে ব্যাংকের পরিবর্তে সিন্দুুকে টাকা রেখেছিল ওরা দু’ভাই। দুদকের ছোবল থেকে পরিত্রাণ পেতেই মূলত এমন কৌশল নেয় গে-ারিয়ার এনু-রূপন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। সিন্দুকে লুকানো টাকার সন্ধান পেয়ে যায় র‌্যাব। বেরিয়ে আসে এনামুল হক এনু রূপন ভূঁইয়ার হঠাৎ উত্থান কাহিনী। বর্তমানে তারা দু’ভাই রয়েছে সিআইডির হেফাজতে। অর্থপাচার আইনের এ মামলায় ক্যাসিনো কাণ্ডের হোতা এই দু’ভাইকে চারদিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে তাদের সহযোগী সানি মোস্তফাকে পাঠানো হয়েছে তিন দিনের রিমান্ডে। মঙ্গলবার সূত্রাপুর থানার অর্থপাচার মামলায় রূপনের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে সিআইডি। এনামুল ও মোস্তফার ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে পুলিশ। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী আসামি এনামুল ও রূপনের ৪ দিন ও মোস্তফার ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সিআইডি জানায়, দেশে ক্যাসিনো কারবার চালুর পেছনের হোতা এ দু’ভাই। নেপালীদের মাধ্যমে দু’ভাই বিদেশ থেকে ক্যাসিনোর সরঞ্জাম নিয়ে আসে। ছড়িয়ে দেয় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। এ কারবার করে দু’ভাই হঠাৎ বিত্তবৈভবের মালিক বনে যায়। এ দুজনের মোট ২২ জমি বাড়ি আছে, যার অধিকাংশই পুরান ঢাকায়। এছাড়া সারাদেশে ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় ৯১ এ্যাকাউন্টে তাদের মোট ১৯ কোটি টাকা জমা রয়েছে। ব্যক্তিগত পাঁচটি গাড়ি রয়েছে দু’ভাইয়ের। সেপ্টেম্বরে দুজনের বাড়িতে অভিযানের সময় ৫ কোটি ৫ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছিল। সেগুলো ছিল ব্ল্যাকমানি। দেশের বাইরে পাচার করতে তারা ওই কালোটাকা সিন্দুকে লুকিয়ে রেখেছিল।

জিজ্ঞাসাবাদে কি পাওয়া গেছে এ বিষয়ে সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিনহাজুল ইসলাম বলেন, রিমান্ড মাত্রই শুরু হয়েছে। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ এখনও শুরু করা যায়নি। প্রাথমিক পর্যায়ে ক্যাসিনো কাণ্ডে তাদের অন্য সহযোগীদের চিহ্নিত করার জন্য খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

নির্বাচিত সংবাদ