২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি সফলতার পথে যেতে ॥ ফখরুল

আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি সফলতার পথে যেতে ॥ ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক ॥ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ভুলত্রুটি আমাদের থাকতে পারে। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি সফলতার পথে যেতে। বিশ্বে রাজনৈতিক যে পরিবর্তন এসেছে আমাদের তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। আমি বিশ্বাস করি আমরা সফল হবো।

আজ শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ‘নির্বাচনে আস্থাহীনতা, ইভিএম’র ব্যবহার: বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল। বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ এ আলোচনার আয়োজন করে।

সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত অহ্বায়ক শওকত মাহমুদ, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, প্রকৌশলী রিয়াজুল রিজু, প্রকৌশলী আশরাফ উদ্দিন বকুলসহ পেশাজীবী পরিষদের নেতারা।

সভায় শওকত মাহমুদের সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক আখতার হোসেন।

আলোচনাকালে বক্তারা বলেন, এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন সম্ভব নয়। এর জন্য নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন ও ইভিএম পদ্ধতি বাতিলের দাবি জানান তারা।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ৩০ জানুয়ারির নির্বাচনে কোনো ভোট হবে না। বিএনপিকে জিততে দেবে না। ইভিএম ব্যবহারের কারণে ভোটাররা বোতাম টিপে ধানের শীষে ভোট দেবে।, কিন্তু ভোট পড়বে নৌকায়। একে প্রতিহত করার জন্য ভোটের আগেই মাঠে থাকতে হবে। ভোটের দিনের জন্য অপেক্ষা করলে চলবে না।

‘কঠোর আন্দোলন ছাড়া এ সরকারকে প্রতিহত করা সম্ভব নয়। আন্দোলনের জন্য ভোটের আগেই সবাইকে মাঠে থাকতে হবে। মাঠ তৈরি করতে হয়। একটা সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তারপর সে সিদ্ধান্ত অনুসারে কাজে নেমে যেতে হবে।’

শওকত মাহমুদ বলেন, ভোট কারচুপির একটি বিজ্ঞানসম্মত উপায় হলো ইভিএম। সরকার অসৎ উদ্দেশ্যে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এর বিরুদ্ধে গণজাগরণ তৈরি করতে হবে।