২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিজয়ী হলে যানজটমুক্ত আর উন্নত ঢাকা গড়বেন ২ মেয়রপ্রার্থী

বিজয়ী হলে যানজটমুক্ত আর উন্নত ঢাকা গড়বেন ২ মেয়রপ্রার্থী
  • আতিক ও তাপসের গণসংযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নির্বাচনে জয়লাভ করলে ‘এ্যাপের’ মাধ্যমে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। রূপকল্প’-৪১-এর মধ্যে ঢাকাকে উন্নত করে গড়ে তোলার বিষয়ে আশা প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীরা। বাংলাদেশ উন্নত হলে ঢাকাকে উন্নত দেশের রাজধানী হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে অঙ্গীকার করেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়রপ্রার্থী ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস। অপরদিকে মাসের মধ্যে ঢাকার পরিবহন সমস্যা ও যানজট মুক্তির প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন ঢাকা উত্তরের আতিকুল ইসলাম।

শনিবার নির্বাচনী প্রচারের নবম দিনে রাজধানীর ভিন্ন ভিন্ন স্থানে নগরবাসীকে এসব আশ^াস দিয়ে গণসংযোগ করেন দুই মেয়রপ্রার্থী। উত্তরে আতিকুল ইসলাম কচুক্ষেত বাজারের স্বাধীনতা চত্বরে (১৬ নম্বর ওয়ার্ড) গণসংযোগের মাধ্যমে দিনের কর্মসূচী শুরু করেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনে জয়লাভ করলে এ্যাপের মাধ্যমে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। নির্বাচিত হলে ঢাকার দীর্ঘদিনের সব সমস্যা দূর করা হবে। তিন মাসের মধ্যে ঢাকার পরিবহন সমস্যা ও যানজট মুক্ত করার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি। এ সময় বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে নৌকা মার্কার লিফলেট দিয়ে নির্বাচনে তাদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেন আতিক।

তিনি বলেন, আমরা একটি স্মার্ট ঢাকা সিটি করতে চাই। উত্তর সিটির দায়িত্ব পালনকালে নাগরিক সেবা দিতে ‘আমার ঢাকা’ নামে এ্যাপ তৈরি করেছি। নির্বাচনে বিজয়ী হলে দায়িত্ব নেয়ার তিনমাসের মধ্যে এই এ্যাপ চালু করব। এই এ্যাপের মাধ্যমে যে কেউ অভিযোগ করতে পারবেন। এ এ্যাপের মাধ্যমে মোবাইল ফোনেই সব নাগরিকসুবিধা পাবে উত্তরের নগরবাসী। এ্যাপটির তত্ত্বাবধান তিনি নিজেই করবেন বলেও জানান। আতিক বলেন, নৌকার কোন গিয়ার নেই, এটি শুধু সামনের দিকে চলে। আমাদের উন্নয়নের যে ধারা শুরু হয়েছে তা শুধু চলতেই থাকবে। আতিকুল ইসলাম বলেন, ৯ মাস দায়িত্ব পালনকালে নানা সমস্যা চিহ্নিত করেছি, সেসব সমস্যা সমাধানে পরিকল্পনাও নেয়া হয়েছে। প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের করা বাস ফ্র্যাঞ্চাইজি চালুর বিষয়ে দৃশ্যমান উদ্যোগ নেব। তার করা ইউ-লুপ প্রকল্পের কাজ বন্ধ আছে, এ বছরের মধ্যে সেটাও চালু করা হবে। গণপরিবহনকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে ‘আমার ঢাকা’ নামে একটি এ্যাপ তৈরি করে তার মাধ্যমে বাসের টিকেট বিক্রি চালু করা হবে। পরিবহনের একাধিক মালিকানা বাতিল করে কয়েকটি কোম্পানি করা হবে। সেখানে পরিবহন ব্যবসায়ীদের জন্য শেয়ার বিক্রি করা হবে।

নির্বাচিত হলে কচুক্ষেত বাজারে যাত্রী ছাউনি করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আ’লীগের উত্তরের এ মেয়র প্রার্থী বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে নৌকাকে বিজয় করে উপহার দিয়ে বঙ্গবন্ধুকে সম্মান জানানো হবে। সবাই মিলে সুস্থ সচল আধুনিক ঢাকা গড়ব। কচুক্ষেত বাজারে যাত্রী ছাউনি করব। দ্রুত যানজট সমস্যার নিরসন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, দায়িত্ব নেয়ার তিন মাসের মধ্যেই যানজট নিরসনের উদ্যোগ নেব, যদিও যানজট এ শহরের বড় চ্যালেঞ্জ। তবুও সবাইকে নিয়ে যানজট সমস্যার দ্রুত সমাধান করব। উত্তরের যানজটপূর্ণ সব এলাকায় ইউলুপ তৈরি করা হবে। আতিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচিত হলে ঢাকার দীর্ঘদিনের ফুটপাথ, এলইডি লাইট, পয়োনিষ্কাশন, রাস্তাসহ পরিকল্পিত বাসযোগ্য আধুনিক ঢাকা গড়ার কাজ আগামী ৬ মাসের মধ্যে শুরু করা হবে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন প্রচারে অংশ নিয়ে বলেন, বিএনপির রাজনীতি উগ্রবাদ, জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকের। আর আওয়ামী লীগের রাজনীতি হলো উন্নয়নের। নৌকা বিজয়ী হলে জঙ্গীবাদ দমন ও মাদক নির্মূল হয়। কিন্তু ধানের শীষ নির্বাচিত হলে ওসব বাড়ে। এ সময় আতিকুল ইসলামের সঙ্গে আরও ছিলেন যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা খানম, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এসএম মান্নান কচিসহ কাফরুল, ভাষানটেক, ক্যান্টনমেন্ট থানা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কচুক্ষেত বাজারের স্বাধীনতা চত্বর থেকে ১৪ নম্বর কচুক্ষেত, কাজীপাড়া, শ্যাওড়াপাড়াসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় গণসংযোগের মাধ্যমে নৌকার পক্ষে ভোট চান আতিক। আজ রবিবার দশম দিনে গণসংযোগে কল্যাণপুর খাজা মার্কেট থেকে শুরু করা হবে বলে আতিকুল তার মিডিয়া সমন্বয়ক টিম জানায়। মিডিয়া সমন্বয়ক জয়দেব নন্দী জানান, ঢাকা ১৪ আসনের ৯, ১০ ও ১১ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও পথসভা করা হবে। কল্যাণপুর খাজা মার্কেটের সামনে থেকে দিনের কর্মসূচী শুরু হয়ে পাইকপাড়া, দক্ষিণ পাইকপাড়া, মধ্য পাইকপাড়া, গাবতলী, গোলারটেক, মাজার রোড, দারুস সালাম ও লালকুঠিসহ আশপাশের এলাকায় গণসংযোগ করবেন মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

ঢাকা দক্ষিণে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস প্রচার ও গণসংযোগ শুরু করেন যাত্রাবাড়ী থানার ৫১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে। যাত্রাবাড়ী মোড় সংলগ্ন টনি টাওয়ারের সামনে প্রচার শুরুর সময় তিনি ’৪১ সালের মধ্যে ঢাকাকে উন্নত করে গড়ে তোলার বিষয়ে আশা প্রকাশ করেন। তাপস বলেন, বাংলাদেশ উন্নত হলে ঢাকাকে উন্নত দেশের রাজধানী হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে। আমরা নবম দিনের গণসংযোগ শুরু করতে যাচ্ছি। যাত্রাবাড়ী এলাকায় আমরা দিনব্যাপী গণসংযোগ করব। আমরা যেখানেই যাচ্ছি অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছি। ঢাকাকে ভালবেসে আমরা উন্নয়নের যে রূপরেখা দিয়েছি তা ঢাকাবাসী সাদরে গ্রহণ করেছে। আমরা আশাবাদী, আগামী নির্বাচনে ঢাকাবাসী নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে উন্নত ঢাকা গড়তে আমাদের তাদের সেবক হিসেবে নির্বাচিত করবেন।

তাপস বলেন, ’৪১ সাল নাগাদ উন্নত ঢাকা করে গড়ে তুলব। যে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন শেখ হাসিনা আমাদের দেখিয়েছেন, সেই উন্নত দেশের রাজধানী হবে উন্নত ঢাকা। তিনি বলেন, ইনশাল্লাহ আমরা নির্বাচিত হতে পারলে আগামী ৫ বছর ঢাকাবাসীর সব মৌলিক ও নাগরিক সেবাসহ ঐতিহ্যের ঢাকা, সুন্দর ঢাকা, সচল ঢাকা, সুশাসিত ঢাকা ও উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রচিত্তে একটি পরিকল্পনার আওতায় নিবেদিতপ্রাণ হিসেবে কাজ করে যাব, সেবা দিয়ে যাব। তিনি ওই এলাকার কাউন্সিলর প্রার্থী মাসুদ মোল্লা ও মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী নাজমা বেগমকে পরিচয় করিয়ে দেন।

ফজলে নূর তাপস যাত্রাবাড়ী থানার ৫১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে তার প্রচার শুরু করেন। পরে তিনি ৬০, ৬১ ও ৬২ নম্বর ওয়ার্ড হয়ে ৪৮ ও ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন সড়কে প্রচারে অংশ নেন। তাপসের প্রচারসঙ্গী ছিলেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সানজিদা খানম, দক্ষিণের স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া