২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কৃষিখাতের সম্প্রসারণে বাংলাদেশের সহযোগিতা চায় ব্রুনাই

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ব্রুনাই দারুসসালাম তাদের কৃষিখাতের সম্প্রসারণে বাংলাদেশের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেছে। ঢাকায় নবনিযুক্ত ব্রুনাইয়ের হাইকমিশনার হাজী হারিস বিন ওসমান বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এসে একথা বলেন। ‘আপনারা কৃষিখাতে ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেছেন, কাজেই আমাদের কৃষিখাতের বিশেষ করে হ্যাচারি (কৃত্রিম মৎস্যপোনা উৎপাদন) খাতের সম্প্রসারণে আমরা আপনার সহায়তা চাই,’ ব্রুনাই হাইকমিশনারকে উদ্ধৃত করে প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বিকেলে বৈঠকের বিষয়ে সংসদ ভবনে সাংবাদিকদের অবহিতকরণকালে একথা বলেন। খবর বাসসর।

প্রেস সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী এবং হাইকমিশনার বৈঠককালে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার মাত্রা আরও বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করেন। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ খাদ্যশস্য এবং সবজি উৎপাদনের সাফল্য নিয়ে ব্রুনাই’র সংগে নিজস্ব অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারে। তিনি তার সরকারের উদ্যোগে সারাদেশে গড়ে তোলা এক শ’ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ব্রুনাইকে খাদ্য এবং কৃষিপ্রক্রিয়াকরণ শিল্পে বিনিয়োগের আমন্ত্রণ জানান। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন যে, বাংলাদেশ ‘মুজিব বর্ষ’ উদ্যাপনকালে ব্রুনাই সুলতানের বাংলাদেশে স্বাগত জানাতে অপেক্ষমাণ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী তার সাম্প্রতিক ব্রুনাই সফরের কথাও এ সময় স্মরণ করেন। শেখ হাসিনা নবনিযুক্ত হাইকমিশনারকে স্বাগত জানান এবং তার দায়িত্ব পালনকালে সবধরনের সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন। ব্রুনাই দারুসসালামের হাইকমিশনার পণ্য রফতানির ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান ‘দ্বৈতকর নীতি’ পরিহার করার বিষয়টিও প্রধানমন্ত্রীর নিকট উত্থাপন করেন। তিনি আরও বলেন, ব্রুনাই বাংলাদেশের সঙ্গে এর ব্যবসা এবং বাণিজ্য বাড়াতে চায় এবং এ ব্যাপারে ইতোমধ্যেই এফবিসিসিআই’র সঙ্গে আলাপ করে বাংলাদেশ-ব্রুনাই ব্যবসায়ী ফোরাম গঠনের প্রস্তাব করেছে। হাজী হারিস ওসমান বাংলাদেশের চমকপ্রদ অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির বিশেষ করে জিডিপি প্রবৃদ্ধি এবং দারিদ্র্য বিমোচনের প্রশংসা করেন। ব্রুনাইতে বাংলাদেশের প্রায় ২৫ হাজার শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন উল্লেখ করে হাইকমিশনার বলেন, ‘এদের বেশিরভাগই চিকিৎসক, প্রকৌশলী এবং শিক্ষক।’ তার দেশ বাংলাদেশ থেকে মাংস আমদানি করতে ইচ্ছুক বলেও হাইকমিশনার উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।