২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গোয়েন্দা লেখক শামীম আমিনুর রহমানকে সম্মাননা

  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সৃজনশীল ভাবনা ও কর্মের এক অনন্য পুরুষ শেকড়সন্ধানী ইতিহাসবিদ শামীম আমিনুর রহমান। পেশায় একজন স্থপতি হলেও শিল্পকলা, ইতিহাস ও চলচ্চিত্র নির্মাণ বিষয়ে অপরিসীম কৌতূহলী। তার লেখালেখির বিষয় সামাজিক ইতিহাস। লিখেছেন পূর্ববঙ্গের প্রথম আকাশচারী, জলতলে নিমজ্জিত প্রতœস্মারক, সিপাহী যুদ্ধের নারীযোদ্ধা ও ঢাকার বাইজি নিয়ে। তার প্রথম বই ‘ঢাকার প্রথম আকাশচারী : ভান তাসেল’। স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি শামীম আমিনুর রহমানের অনুসন্ধানী সৃজনকর্মের জন্য সম্মাননা জানানো হয় রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে শনিবার বিকেলে। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ম্যাগনাম ওপাস আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন লেখক, গবেষক ও ইতিহাসবিদ ড. মুনতাসীর মামুন। লেখক শামীম আমিনুর রহমানের সৃজনকর্ম সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক লুভা নাহিদ চৌধুরী, কথাসাহিত্যিক আলী ইমাম, স্থপতি নিখিল চন্দ্র গুহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউটের সভাপতি জালাল আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, আমি যে জায়গাতে কাজ করছি সত্যি কথা বলতে এসব জায়গায় প্রচলিত ব্যবস্থাপকরা ক্রিয়েটিভ জায়গাগুলো ওভারটেক করে। সৃজনশীলতার মানের দিকে না তাকিয়ে আমরা কেউই এগুতে চাই না। শামীম আমিনুর রহমানের সৃজনকর্মে মৌলিকত্ব আছে। এটা সমাজে বহুদিন ধরে হয়ে আসছে। সমাজে এখন একটা বেমানান প্রতিযোগিতা চলছে। এটা প্রতিরোধে সবার এগিয়ে আসা উচিত। আমরা যদি ঐতিহ্যের সংস্কৃতি ধারণ না করি তাহলে কখনও দেশ এগুবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. মুনতাসীর মামুন বলেন, শামীম আমিনুর রহমানের মধ্যে কিছু জানার জন্য অনুসহিষ্ণু বিষয় কাজ করে। শিল্প-সাহিত্যের মধ্যে নিয়োজিত না থাকলে তারা কিন্তু প্রকৃত মানুষ হয় না। শামীমের ভেতর এ বোধ আছে। ইতিহাস মানুষকে স্থায়িত্ব দেয়। সেই ইতিহাস মানুষকে জানাতে চায় যার স্থায়িত্ব অনেক বেশি। তার কাজ অব্যাহত থাকুক, এটাই আশা করি।

লুভা নাহিদ চৌধুরী বলেন, শামীম আমিনুর রহমান শুধুমাত্র একজন লেখক, গবেষক ও স্থপতিই নন, তিনি ভাল গানও করেন। তার ইতিহাসবোধ চিরজাগ্রত থাকুক।

কথাসাহিত্যিক আলী ইমাম বলেন, আমি মনে করি শামীম আমিনুর রহমান একজন নিভৃতচারী গোয়েন্দা লেখক। ইতিহাসের রহস্যময় বিষয়গুলো তিনি সব সময় তুলে ধরার চেষ্টা করেন, যা রহস্যময় মনে হয়। অনেক বিষয় আছে যা মুনতাসীর মামুন তথ্য দিয়েছেন আর শামীম আমিনুর রহমান তার রহস্যগুলো খুঁজে বের করেছেন।

স্থপতি নিখিল চন্দ্র গুহ বলেন, নিভৃতচারী লেখক শামীম আমিনুর রহমান। নিঃসন্দেহে একজন ভাল লেখক ও গবেষক। আমি তাকে আরও গবেষণাধর্মী লেখার জন্য অনুরোধ করছি।

প্রধান অতিথি গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের হাত থেকে স্মারক সম্মাননা গ্রহণের পর প্রতিক্রিয়ায় শামীম আমিনুর রহমান বলেন, আমি লেখক নই, বাইচান্স লেখক। আমি ফিল্ম বানাতে গিয়েছিলাম কিন্তু পারিনি। হয়ে গেলাম লেখক।

শুরুতে লেখক শামীম আমিনুর রহমানের অনুসন্ধানীমূলক তথ্যচিত্রের ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। এর পর স্বাগত বক্তব্য রাখেন ম্যাগনাম ওপাসের কর্ণধার আনোয়ার ফারুকী।

আলোচনা ও সম্মাননা প্রদানের পর সঙ্গীত পরিবেশন করে জলের গানের শিল্পীরা।