২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যুক্ত হলো উন্নত মানের ১২৮ স্লাইসের সিটি স্ক্যান ও ডিজিটাল এক্স-রে মেশিন

যুক্ত হলো উন্নত মানের ১২৮ স্লাইসের সিটি স্ক্যান ও ডিজিটাল এক্স-রে মেশিন

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিহ ॥ যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে যুক্ত হয়েছে উন্নত মানের ১২৮ স্লাইসের সিটি স্ক্যান মেশিন। একই সাথে আরও একটি আধুনিক ডিজিটাল এক্স-রে মেশিন স্থাপনের কাজ চলছে। আগামী সপ্তাহ থেকে রোগীরা এ থেকে সুফল পেতে শুরু করবেন। আর এর ফলে আধুনিকতায় আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলো সরকারি এ হাসপাতালটি।

রবিবার সকাল থেকে হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগের পাশে সিটি স্ক্যান এবং এক্স-রে মেশিনটি বসানোর কাজ করছেন ইঞ্জিনিয়াররা। আগামী সপ্তাহ থেকে এই মেশিনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুবিধা পাবে হাসপাতালে ভর্তি ও বহিঃবিভাগের রোগীরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায়।

তিনি জানান, সিটি স্ক্যান মেশিনটি চালু হলে ১২শ’ থেকে ১৫শ’ টাকার মধ্যে রোগীরা পরীক্ষার সুযোগ পাবে। বর্তমানে এ পরীক্ষা বেসরকারি ক্লিনিকে করতে রোগীদের খরচ হয় ২ হাজার টাকা থেকে তিন হাজারের মধ্যে।

হাসপাতালের প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, হাসপাতালে দিন দিন রোগীর চাপ বেড়েই চলেছে। হাসপাতালসহ মেডিকেল কলেজের ১৯ বিভাগের চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র রোগীরা পেলেও আধুনিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুফল থেকে বঞ্চিত ছিলো রোগীরা। তাই আধুনিক মেশিনের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি স্বাস্থ্য বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিগোচর হয়। তখন মন্ত্রণালয় থেকে হাসপাতালের জন্য সিটি স্ক্যানসহ আধুনিক মেশিনারিজ বরাদ্দ দেওয়া হয়। সকল মেশিনারিজ পর্যায়ক্রমে গত বছর হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগে স্থাপন করা হয়। শুধু সিটি স্ক্যান মেশিনটি স্থাপনের অপেক্ষায় ছিলো। সেটিও রবিবার থেকে হাসপাতালে স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। আগামী সপ্তাহে এর আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। ফলে রোগীদের বাড়তি খরচে বাইরের বেসরকারি ক্লিনিক থেকে পরীক্ষা করতে হবে না। বর্তমানে হাসপাতালে সকল প্রকার আধুনিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

এ ব্যাপারে তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় জানান, বিভাগীয় পর্যায়ে সিটি স্ক্যান মেশিন থাকলেও দেশে জেলা পর্যায়ে এই প্রথম যশোর জেনারেল হাসপাতালে উন্নত মানের ১২৮ স্লাইসের সিটি স্ক্যান মেশিন সংযোজন হলো। উন্নতমানের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এ সিটি স্ক্যান মেশিনে রোগীর সিটি এনজিও গ্রামের মাধ্যমে হার্টে ও অন্যান্য অঙ্গ-প্রতঙ্গের রক্তনালীর রক্ত প্রবাহের দৃশ্য এবং রক্তনালীর সংকোচন খুঁজে পাওয়া যাবে।