২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশের প্রথম আইটি ভিলেজ

  • শহিদুল আলম মজুমদার

দেশে হাইটেক শিল্প তথা তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর শিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার ‘বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ আইন-২০১০’ (আইন নং-৮)-এর দ্বারা বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠা করেছে।

কালিয়াকৈর হাইটেক পার্কের বর্তমান নাম বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি, এটি দেশের প্রথম হাইটেক পার্ক। প্রাথমিকভাবে এ পার্কের জন্য ২৩২ একর জমি বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু সরেজমিন পরিমাপে অতিরিক্ত ২৬ একর জমি পাওয়া যায়। ফলে জমির পরিমাণ দাঁড়ায় ২৫৮ একর। এ ছাড়া পরবর্তীতে সরকার আরও ৯৭ একর জমি পার্কের জন্য বরাদ্দ করে। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির মোট জমির পরিমাণ ৩৫৫ একর। পিপিপি মডেল বাস্তবায়নের জন্য প্রাথমিকভাবে বরাদ্দ প্রাপ্ত ২৩২ একর জমিকে ০৫টি ব্লকে ভাগ করা হয়।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে সরকারী অর্থায়নে অভ্যন্তরীণ রাস্তা নির্মাণ, পার্শ্ববর্তী গ্রামের মানুষের জন্য বিকল্প রাস্তা নির্মাণ, অভ্যন্তরীণ (শাখা) সড়ক নির্মাণ, ব্রিজ ও ৬টি কালভার্ট নির্মাণ, স্যুয়ারেজ লাইন ও স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্ট নির্মাণ, সড়কবাতি নির্মাণ, বিকল্প রাস্তার স্ট্রিট লাইট নির্মাণ, বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ, কাস্টমস হাউজ/সেবা ভবন নির্মাণ, পানি সরবরাহ লাইন ও রিজার্ভার নির্মাণ, অভ্যন্তরীণ বিদ্যুত লাইন স্থাপন, ৩ তলা প্রশাসনিক ভবনে ফিটিং ফিক্সার স্থাপন, লেক উন্নয়নের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

বর্তমানে সামিট টেকনোপলিশ লিঃ ব্লক নং ২-এ প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১.৬৫ লাখ বর্গফুট বিশিষ্ট একটি ৩তলা সিগনেচার বিল্ডিং নির্মাণ করছে, যার পূর্ত কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং ইনটেরিয়র ডেকোরেশনের কাজ চলমান রয়েছে। ব্লক নং ৫-এ প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬০ হাজার বর্গফুট বিশিষ্ট একটি ইন্ডাস্ট্রিয়াল বিল্ডিং নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করেছে। সামিট টেকনোপলিশ লিঃ তাদের অনুকূলে বরাদ্দকৃত ব্লকে ৭টি দেশী-বিদেশী বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ২ লাখ ২৪ হাজার ৮১৪ বর্গফুট স্পেস এবং ৩৩ একর জমি বরাদ্দ প্রদান করেছে। এর মধ্যে ঙৎুী ইরড়-ঞবপয খঃফ. নামীয় বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে ইরড়-ঞবপয ইন্ডাস্ট্রি নির্মাণের জন্য সিগনেচার বিল্ডিংসহ ২৫ একর জমি বরাদ্দ প্রদান করেছে। এ ছাড়া ব্লক নং ৫-এর ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভবনে ৩টি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে স্পেস বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেকনোসিটি লিঃ ব্লক নং ৩-এ দুই লাখ বর্গফুট বিশিষ্ট ৮তলা এমটিবির অবকাঠামো নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে ভবনটির ব্রিক ওয়ালের কাজ চলমান রয়েছে। এতে প্রতিষ্ঠানটি ৪২ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। এ ছাড়া মাস্টার প্ল্যান মোতাবেক নতুন ৭৩ হাজার ৫০০ বর্গফুট বিশিষ্ট ৩তলা ফ্যাক্টরি ভবনের ২৪ হাজার ৫০০ বর্গফুট সম্পন্ন করেছে। বাংলাদেশ টেকনোসিটি লিঃ কর্তৃক তাদের অনুকূলে বরাদ্দকৃত ব্লকে ৭টি দেশী-বিদেশী বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৬৯ হাজার ৫০০ বর্গফুট রেডি স্পেস এবং ৩.৬ একর জমি বরাদ্দ করেছে।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির ব্লক নং ৬-এ ইতোমধ্যে কয়েকটি পর্যায়ে দেশী-বিদেশী ১৯টি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে জমি বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। এ সকল বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান তাদের অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু করেছে। এ ছাড়া অন্য প্রতিষ্ঠানসমূহ দ্রুতই অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু করবে মর্মে জানিয়েছে।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির প্রশাসনিক ভবনে সোনার বাংলা ফাউন্ডেশন এবং ডেলটা ইনস্টিটিউট লিঃ নামের দুটি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে স্পেস বরাদ্দ করা হয়েছে।

সরকারী অর্থায়নে সেবা ভবনের ২য় তলা পর্যন্ত অর্থাৎ ২৭ হাজার ২৬০ বর্গফুট নির্মাণ কাজ সম্পন হয়েছে। বর্ণিত ভবনে ১৫ হাজার ৭১৮ বর্গফুট স্পেস ডাটা সফট এবং ৪ হাজার ৬০০ বর্গফুট স্পেস বিজনেস অটোমেশন নামের প্রতিষ্ঠানকে বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। ডাটা সফট নামের প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে পণ্য উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করেছে। অপর প্রতিষ্ঠান বিজনেস অটোমেশন কড়রংশ গধপযরহব উৎপাদনের কার্যক্রম শুরু করেছে।

বাংলাট্রনিক্স টেকনোলজি লিমিটেড, কেমান টেকনো অপটিক্যাল ক্যাবলস প্রাঃ লিঃ এবং লিও আইসিটি ক্যাবলস লিঃ তাদের উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

পিআইডি প্রবন্ধ