২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

করোনা ভাইরাস-স্পন্সরহীন প্রিমিয়ার লীগ ফুটবল!

করোনা ভাইরাস-স্পন্সরহীন প্রিমিয়ার লীগ ফুটবল!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশে বহুল আলোচিত ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত না হলেও দেশের ফুটবলে এই ভাইরাস ভালোই প্রভাব ফেলেছে! করোনা ভাইরাসের কারণে নাকি দেশের ফুটবল স্পন্সর পাচ্ছে না- এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ। তাই স্পন্সর ছাড়াই বৃহস্পতিবার থেকে মাঠে গড়িয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় ফুটবল আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)।

গতকাল থেকে শুরু হয়েছে ২০১৯-২০ মৌসুমের লীগ। এবারও স্পন্সর ছাড়াই মাঠে গড়ালো আসর!

সাইফ পাওয়ারটেকের সঙ্গে স্পন্সরশিপের সম্পর্ক চুকেবুকে যাওয়ার পর নতুন প্রতিষ্ঠানের দ্বারস্থ হয় বাফুফে। নতুন প্রতিষ্ঠানটির নাম আইএসপি (ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস পার্টনারস) মার্কেটিং এজেন্ট। পাঁচ বছরের জন্য এই প্রতিষ্ঠানটি বাফুফের অধীনে যত ঘরোয়া আসর-লীগ (প্রিমিয়ার লীগ থেকে মহানগরীর অধীনে থাকা লীগসমূহ) আছে সেগুলোর স্পন্সর করবে, এই মর্মে দুই পক্ষের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। যদিও এই প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম সম্পর্কে খুব বেশি অবগত নয় গণমাধ্যম। কত টাকায় বাফুফের সঙ্গে আইএসপির চুক্তি হয়েছে, এ বিষয়টি সব সময়ই গোপন রেখেছে বাফুফে। সাধারণ সম্পাদক সোহাগকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলেই উত্তর মিলেছে বেশ ভালো অংকেরই চুক্তি হয়েছে।

চুক্তি কত টাকা কিংবা প্রকাশ করা না করার এখতিয়ার বাফুফের। তবে স্পন্সর ছাড়া লীগের মতো বড় আসরের পর্দা ওঠা দুঃখজনক। কেন এবার স্পন্সর ছাড়াই লীগ মাঠে গড়ালো-এমন প্রশ্নে সোহাগ জানান, ‘প্রিমিয়ার লীগের সঙ্গে স্পন্সরশিপ রাইট রয়েছে আইএসপির। আইএসপি একটি চীনভিত্তিক কোম্পানি। তাদের মূল অফিসটা যেহেতু চীনে, তারা আমাদের কাছে কিছুটা সময় নিচ্ছে। করোনা ভাইরাসের কারণে চীনের সঙ্গে আমাদের বিভিন্ন ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। আমদানী-রপ্তানিসহ সব ধরনের কাজগুলো শ্লথ রয়েছে। আইএসপির সঙ্গে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে; তারা আমাদের সময়মতো লীগ শুরু করতে বলেছে। তারা সব ধরনের কাজ শেষ করে রেখেছে। টাইটেল স্পন্সর যারা রয়েছে লীগের দুই থেকে তিন সপ্তাহ পর ঘোষণা করা হবে। গতবারও তাই হয়েছে।’