২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশ মোশতাকের ধারায় চলছে ॥ সেলিম

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ বঙ্গবন্ধুর চার নীতির পরিবর্তে দেশ খন্দকার মোশতাকের ধারায় পরিচালিত হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম। তিনি বলেন, চার মূল নীতিকে সামনে রেখে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর খন্দকার মোশতাক ভিন্ন ধারায় চলতে শুরু করে। একই পথ ধরে জিয়া-এরশাদ-খালেদা জিয়াও চলেছে। সেই পথ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরোধী পথ। আজ জিজ্ঞেস করতে চাই, বাংলাদেশ সে চার নীতিতে চলছে নাকি মোশতাকের সূচিত ধারার সাম্প্রদায়িক নীতিতে চলছে? জনসভায় তিনি লুটপাটতন্ত্রের বিরুদ্ধে নতুন সংগ্রাম গড়ে তোলার আহ্বান জানান। শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামের লালদীঘি মাঠে সিপিবি বিভাগীয় জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম কথাগুলো বলেন। ‘দুঃশাসন হঠাও, ব্যবস্থা বদলাও, বিকল্প গড়ো’ স্লোগানে দেশের ৮ বিভাগে সমাবেশ কর্মসূচীর প্রথম জনসভাটি অনুষ্ঠিত হয় চট্টগ্রামে। সিপিবি সভাপতি সেলিম বলেন, দেশ এখন মুক্তবাজার, লুটপাট, দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িকতার নীতিতে চলছে। তিনি বলেন-প্রধানমন্ত্রী বললেন, মদিনা সনদে দেশ চলবে। কিন্তু সংবিধান অনুযায়ী দেশ চলবে, নাকি মদিনা সনদ অনুযায়ী চলবে? তাহলে সংবিধান পরিবর্তন করে সেখানে মদিনা সনদ লিখে দেন। তিনি বলেন, এখন প্রতিযোগিতা চলছে খালেদা বেশি না হাসিনা বেশি ‘ইসলাম পছন্দ’। এ প্রতিযোগিতায় দেশ এগোবে না। দেশকে সমৃদ্ধি ও প্রগতির দিকে নিয়ে যেতে হলে মুক্তিযুদ্ধের পথেই ফিরতে হবে। দেশের গণতন্ত্রের অবস্থা তুলে ধরতে গিয়ে তিনি বলেন, জনগণের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে। একবার খালি মাঠে ১৫৪ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে গেল। একই পদ্ধতিতে দ্বিতীয়বার ডাকাতি করা যায় না। সে জন্য ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের নির্বাচন হয়ে গেল আগেরদিন ২৯ ডিসেম্বর রাতে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও জানেন না যে, ভোট হয়ে গেছে। টেনেটুনে ৩০ শতাংশ ভোট দেখানো হয়েছে। কিন্তু পর্যবেক্ষকরা বলেছেন ৭ শতাংশ ভোটও পড়েনি। মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে সিপিবি সভাপতি বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন দেশের সম্পদ বিদেশে পাচারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করা ন্যায়সঙ্গত।