২৯ জানুয়ারী ২০২০  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাদা পাজামা পাঞ্জাবি পরা লোকটা-

একটা শব্দ, তারপর অনেকগুলো শব্দ, একটানা শব্দে চারপাশ কাঁপিয়ে দিচ্ছে। আশপাশের গাছের ঘুমন্ত পাখিগুলো জেগে গেছে। নিজেদের ভাষায় চেঁচামেচি করছে আর উদ্দেশ্যবিহীন ছোটাছুটি করছে। দবির

সাহিত্য

পিতা ও রোদমেয়ের কথোপকথন

টুঙ্গিপাড়া পাড় আজ জেগেছে অনেক আগে। আজকের সকালটা ভীষণরকম আনন্দের। খুশিতে ঢেউ খেলছে ধানের গাছ, সাগরের বুক ঢেউ তুলছে নেচে নেচে। পাখিদের কণ্ঠে গান, ‘আমার

সাহিত্য

আগাছা

ভোরের আলো ফোটার আগেই ধান ক্ষেতের আগাছাগুলো পরিষ্কার করতে হবে। আগাছা বড় হওয়াতে জমির উর্বরতা কমে আসে। এই কয়দিন প্রচ- বৃষ্টিপাত হয়েছে। চারাগাছগুলো পানির নিচে

সাহিত্য

নজরুলের নিষিদ্ধ অধ্যায়

নজরুল তাঁর চারটি সন্তানের নাম রেখেছিলেন হিন্দু মুসলমানের মিলিত ঐতিহ্য ও পুরাণের আলোকে। তাঁর সন্তানদের নাম যথাক্রমে কৃষ্ণ মুহাম্মদ, অরিন্দম খালেদ, কাজী সব্যসাচী ও কাজী

সাহিত্য

আনন্দের ভৌগোলিক অবস্থান

কবিতার দুয়ারে কড়া নেড়ে চলেছি, আমাকে দাও নক্ষত্র-কুচি কবিতা কিংবা পুষ্প-রেণু কবিতার পঙক্তি, আমার কবিতায় নক্ষত্র নিভে যায়- কবিতার কুসুম ঝরে যায় অকালে, গোধূলির ম্লান আলো এসে উঁকি মারে কবিতার

সাহিত্য

শরবিদ্ধ মৃগশিশু

ধ্যানমার্গে সমাহিত সিদ্ধার্থ বনাম তথাগত বুদ্ধ নিকটে নির্ভয়ে স্থির স্মিতকায় হরিণশাবক অকস্মাৎ ধেয়ে আসে ক্ষিপ্রগতি নিক্ষিপ্ত শায়ক তীব্র কামে ছুঁয়ে দেয় ন¤্রপ্রাণ ছায়া দুলে ওঠে তপোবন বোধিবৃক্ষতলা

সাহিত্য

নির্জনতা প্রিয় কবি

মুস্তাফিজ শফি। জাতীয়পর্যায়ে তার সময়ের সবচেয়ে মেধাবী তরুণদের একজন। কবি হিসেবে যতটা আলোচিত হবার কথা ছিল তা তার সাংবাদিক পরিচয়ের দরুন অনেকটা ভাটা পড়ে গেছে।

সাহিত্য

কল্পরাজ্যের এক গল্প

আইজ্যাক এ্যাসিমভের ফাউন্ডেশন সম্পর্কে বলতে গেলে বিস্তর কথা বলা যায়। এ যাবতকালের শ্রেষ্ঠ বেস্টসেলিং থ্রিলোজি সায়েন্স ফিকশন বলা হয় ফাউন্ডেশনকে। এক ধরনের উচ্চমার্গীয় সায়েন্স ফিকশন,

সাহিত্য

নষ্ট চিন্তা

আজও রাম রহিমেরা শুয়ে থাকে পাশাপাশি, একই শানকিতে সকালে নাস্তা, দুপুরে ভাত, রহিমের মা চিতকার করে ডাকে, ওরে রাম বাপ, খেয়ে নেরে ভাত, ভাতের কি জাত আছে

সাহিত্য

ভেঙ্গে গেলে উপকূল

নিস্তব্ধ আঁধারের বুকে ঢেউয়ের আবাহন বেজে উঠল ছলাৎ ছল জল মূর্ছনায় ভেঙে যাবে উপকূলবাসীর স্বপ্ন কেউ জানে না কখন কোথায় কিভাবে বিলীন হবে হৃদয়ের ভিটেমাটি তবুও তরঙ্গের নিরবচ্ছিন্ন

সাহিত্য

বিদ্যাসাগরের দর্শনচিন্তা

বাঙালি রেনেসাঁসের অন্যতম প্রাণশক্তি ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসার (১৮২০-১৮৯১) এক অনন্য চরিত্র। তিনি দার্শনিক, সমাজ-সংস্কারক, শিক্ষাবিদ এবং আধুনিক বাংলা গদ্যের অন্যতম রূপকার। কুসংস্কারমুক্ত, যুক্তিবাদী এবং বিজ্ঞানমনস্ক সমাজ

সাহিত্য

নব জাগরণের কবি

মধ্যযুগের জীবনধারা, শ্রীচৈতন্য প্রভাবিত কাব্যসাহিত্য, সামাজিক শাসন, শাস্ত্রের বন্ধন, কুসংস্কার থেকে বেরিয়ে ব্রিটিশ রাজত্বকালে ভারতের বিশেষ করে তৎকালীন বঙ্গদেশে উনবিংশ শতকে সমাজ, শিক্ষা, ধর্ম সংস্কার

সাহিত্য
নির্বাচিত সংবাদ